ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেট

আমি সাড়ে পাঁচ বছর অপেক্ষা করেছি

১৩ আগস্ট সোমবার দিনটি মোহাম্মাদ আশরাফুলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নির্বাসনে থাকার শেষ দিন। এদিনই শেষ হচ্ছে দীর্ঘ সাড়ে পাঁচ বছরের অপেক্ষার পালা। মঙ্গলবার সকালের সূর্যটা ওঠার সাথে সাথে এই সাবেক অধিনায়কের জন্য শুরু হবে নতুন একটি অধ্যায়। সব নিষেধাজ্ঞার শেষে তার জন্য উন্মুক্ত হবে সব ধরনের ক্রিকেটের দ্বার।

সোমবার বাংলাদেশের ক্রিকেট থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠছে মোহাম্মদ আশরাফুলের। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক এই অধিনায়ক জানান অনেক দিন ধরে এই দিনটির অপেক্ষায় ছিলেন। ২০১৩ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে ম্যাচ পাতানো ও স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে পরের বছর বিপিএল এন্টি করাপশন ট্রাইব্যুনাল আশরাফুলকে ৮ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে। সঙ্গে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। পরে সে বছর সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ডিসিপ্লিনারি প্যানেল ওই সাজা কমিয়ে পাঁচ বছর করে।

মুক্তির এই দিন সম্পর্কে আশরাফুল বিবিসিকে বলছেন ‘প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর ধরে অপেক্ষা করেছি এই দিনটির জন্য, এবার ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলার জন্য উন্মুক্ত হচ্ছি।’

গত দুই বছর ধরে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলছেন তিনি। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ও জাতীয় লিগে ক্রিকেট খেলেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তবে তার লক্ষ্য এবার জাতীয় দলে ফেরা। আশরাফুল বলেন, ‘যদিও আমি শেষ দুই বছর প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেট খেলেছি। পাঁচ বছর আগে থেকেই ভেবেছিলাম যে বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলবো। শেষ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ভাল খেলেছি। এবারও ঘরোয়া ক্রিকেটে বাড়তি মনোযোগ থাকবে।’

ফিটনেসের প্রতি বিশেষ নজর
ক্রিকেটে ফেরার পর থেকে মূলত ফিটনেসের দিকে নজর ছিল মোহাম্মদ আশরাফুলের। বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করছেন আশরাফুল। সেখানে নিজেকে প্রস্তুত করছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য। অভিষেক টেস্টে সবচেয়ে কম বয়সে টেস্ট সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়া আশরাফুল স্বপ্ন দেখছেন আবার জাতীয় দলে ফেরার। ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করেই ফিরতে চান জাতীয় দলে। তার লক্ষ্য জাতীয় দলের হয়ে আগামী বিশ্বকাপ(২০১৯) খেলা। জানালেন, ‘আমি মূলত ফিটনেসের প্রতি নজর দিচ্ছি দুইটা বছর ধরে। গেল দু মাসে আট থেকে নয় কেজি ওজন কমেছে।’ আশরাফুল তার এই দুঃসময়েও সমর্থন দিয়ে যাওয়ার জন্য ভক্ত-সমর্থকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। উল্লেখ বর্তমানে আশরাফুলের বয়স ৩৪ বছর।

জাতীয় দলে ফেরার সুযোগ কতটা?
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট অপারেশন্সের প্রধান আকরাম খান বিবিসি বাংলাকে বলেন, ‘শুধু আশরাফুল কেনো? এখানে সবার সমান সুযোগ রয়েছে।’

আকরাম খান বলেন, এখানে ঘরোয়া ক্রিকেট আছে। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভাল করলে অবশ্যই সুযোগ পাবে আশরাফুল। আশরাফুলের জাতীয় দলে খেলার সময়ের স্মৃতিচারণ করে আকরাম খান বলেন, ‘বাংলাদেশের জার্সিতে ওর এতো সুন্দর কিছু ইনিংস আছে যা আমাদের তার কথা মনে করিয়ে দেয়।’

সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স
গত দুই মৌসুমে আশরাফুলের সেরা পারফরম্যান্স, ২০১৭-১৮ মৌসুমে লিস্ট-এ’ তে পাঁচটি সেঞ্চুরি। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে করা তার পাঁচ সেঞ্চুরি একটি রেকর্ড। কোন লিস্ট-এ টুর্নামেন্টে পাঁচটি সেঞ্চুরি করা দ্বিতীয় ক্রিকেটার তিনি, বাংলাদেশে প্রথম। ২০১৫-১৬ মৌসুমে মোমেন্টাম ওয়ানডে কাপে দক্ষিণ আফ্রিকার আলভারো পিটারসন পাঁচটি সেঞ্চুরি করেছিলেন।

নিষেধাজ্ঞা উঠার পর ২৩টি লিস্ট-এ ম্যাচে আশরাফুলের গড় ৪৭.৬৩ হলেও তবে এ সময়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সময়ে ১৩ ম্যাচে তার গড় ২১.৮৫। বাংলাদেশের হয়ে ১৭৭টি ওয়ানডে ম্যাচ ও ৬১টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল।

Related Articles

Close