ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেট

২০১৯ সালে বিশ্বকাপ খেলবেন এটাই মাশরাফির স্বপ্ন

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষ হয়েছে কয়েকদিন আগেই। এই সিরিজে টেস্টে হতাশা থাকলেও সফল ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে। বহুদিন পর বিদেশের মাটিতে সিরিজ জিতে দেশে ফিরেছে টাইগার বাহিনী। তবে ছুটিতে থাকায় দেশে ফেরেননি মাশরাফি সহ ৪ ক্রিকেটাররা।

মাশরাফি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রেই। গতকাল রাতে জ্যাকসন হাইটসের বেলোজিনো পার্টি হলে এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। শো টাইম মিউজিকের আয়োজনে এই সভায় উপস্থিত হন অনেক বাংলাদেশি।

মাশরাফি এসময় বাংলাদেশের ক্রিকেটের বর্তমান অবস্থান ও ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতেই তিনি প্রবাসীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, পৃথিবীর নানা প্রান্তে থাকা বাংলাদেশের ভালোবাসার জন্যেই তারা খেলেন। ফ্লোরিডায় বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশির খেলা দেখতে যাওয়ায় তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জানান। বলেন, এত কষ্ট করে আপনারা নিজেদের শত ব্যস্ততার পরও, যেভাবে খেলা দেখতে গেছেন, তা সত্যিই দারুন’।

আলোচনার একপর্যায়ে তিনি জানালেন তিনি ওয়ানডে খেলাটা চালিয়ে যাবেন এবং ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলবেন এটাই তার স্বপ্ন। তবে তার টি-টোয়েন্টিতে ফেরার সম্ভাবনা নাই বলেও জানান।

 

অভাবের তাড়নায় রিকশা চালাতেন ইউসুফ!

 

পাকিস্তানের সাবেক তারকা ক্রিকেটার মোহাম্মদ ইউসুফ খেলেছেন পাকিস্তানের হয়ে, ছিলেন ডানহাতি তুখোর ব্যাটসম্যান ও অধিনায়ক। লাহোরে জন্মগ্রহন কারী এ ক্রিকেটার জন্মগতভাবে ছিলেন হিন্দু পরে খ্রিষ্টান ধর্মে দীক্ষিত হন।

এর পর ২০০৫ সালে তিনি মুসলিম ধর্মে দীক্ষিত হন। পাকিস্তানের এ ক্রিকেটার যিদি অভাবের তাগিদে রিকশাও চালিয়েছেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমগুলো।

জানাযায়, ইউসুফ নিম্নশ্রেণীভূক্ত হিন্দু বাল্মিকি গোত্রে জন্মগ্রহণ করেন যারা পরবর্তীতে খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহণ করেন। বাবা ইয়োহানা মাসেহ রেলওয়ে স্টেশনে কাজ করতেন ও রেলওয়ে কলোনিতে বসবাস করতো তাদের পরিবার। শৈশবে তিনি ব্যাট চালাতে পারতেন না; তাই তার ভাইয়েরা টেনিস বলের সাহায্যে তাকে সাহস যোগাতেন। ১২ বছর বয়সে গোল্ডেন জিমখানা দলের দৃষ্টিতে পড়েন ও ক্রিকেটের সাথে সম্পৃক্ত হন।

২০১০ সালে ইউসুফকে নিষিদ্ধ করা হয় এর পর ওই বছরই তিনি আন্তর্জাতিক সকল ক্রিকেটকে বিদায় জানান। যদিও পরবর্তীতে তাকে পিসিবি তাকে যোগদানের জন্য অনুরোধ জানিয়েছিল।

Related Articles

Close