আন্তর্জাতিক ফুটবলফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ ২০১৮ফুটবল

বিশ্বকাপের অর্থ দিয়ে মসজিদ নির্মাণ

ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ী দলের অন্যতম তারকা ওসমান দেম্বেলে। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ফাইনালে না খেললেও প্রাইজমানি আর বোনাসের টাকা পাচ্ছেন বার্সেলোনার এই ওয়ান্ডার কিড। বিশ্বকাপে অর্জিত সব টাকাই তিনি খরচ করতে যাচ্ছেন মুসলমানদের জন্য মসজিদ নির্মাণের কাজে।

উত্তর ফ্রান্সের ভার্ননে জন্ম দেম্বেলের। বাবা-মা দু’জনেই উত্তর-পশ্চিম আফ্রিকার মৌরিতানিয়া থেকে এসেছিলেন ফ্রান্সে। দেম্বেলের মা সেনেগালের আর বাবা মালির। দুজনই মুসলিম।

আফ্রিকার উত্তরের দেশ মৌরিতানিয়া। মুসলিম অধ্যুষিত মায়ের গ্রামে একটি মসজিদ নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন দেম্বেলে। তাতে খরচ করবেন বিশ্বকাপে অর্জিত সব টাকা। শতভাগ মুসলমানদের এই দেশটির আয়তন ১০ লক্ষ ৩০ হাজার বর্গ কিলোমিটার। দেশটির লোকসংখ্যা প্রায় ৪৪ লাখ।

২১ বছর বয়সী দেম্বেলে রাশিয়ায় খেলেছেন বিশ্বকাপের চারটি ম্যাচ। অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান, অলিভের জিরুদ, কাইলিয়ান এমবাপেদের আক্রমণভাগে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি। রেনের হয়ে খেলার পর ২০১৬-১৭ মৌসুমে দেম্বেলে যোগ দেন জার্মান ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ডে। এক মৌসুম পড়েই যোগ দেন বার্সায়। জাতীয় দলের হয়ে দেম্বেলে খেলছেন ২০১৬ সাল থেকে, ১৬ ম্যাচ খেলে গোল করেছেন মাত্র দুটি।

তবে, বার্সায় যোগ দিয়েই আলোচনায় আসেন মুসলমান এই খেলোয়াড়। ২০১৫ সালে পেশাদার ফুটবলে অভিষিক্ত দেম্বেলে দেড় কোটি ইউরো ট্রান্সফার ফিতে রেন থেকে ডর্টমুন্ডে যোগ দেন। বুন্দেসলিগার ক্লাবটির সঙ্গে তার চুক্তির মেয়াদ ছিল ২০২১ সাল পর্যন্ত। পরে পাঁচ বছরের চুক্তিতে মেসি-সুয়ারেজদের ক্লাবে যোগ দেন তিনি। ২১ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়ের বাই আউট ক্লজ ধরা হয় ৪০ কোটি ইউরো।

 

দুই টাইগার ভেঙ্গে দিলেন তের বছরের রেকর্ড

স্বাগতিক ক্যরিবিয়ানদের বিপক্ষে অসাধারণ জয়ের পাশাপাশি অনন্য একটি রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন টাইগাররা। উইন্ডিজের মাটিতে সফরকারী দল হিসেবে যে কোন উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েছে বাংলাদেশ।

এদিন টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া টাইগারদের উইকেটের পতন ঘটে দ্বিতীয় ওভারেই। দলীয় এক রানের মাথায় উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের বলে অসহায় আত্মসমর্পণ করেন ওপেনার এনামুল হক বিজয়।

শুরুর ধকল সামলাতে মাঠে নামেন টাইগার সহঅধিনায়ক সাকিব আল হাসান। শুরু হয় সাকিব, তামিমের ধৈর্যশীল ব্যাটিং প্রদর্শনী। দুজনেই খুব দেখেশুনে খেলেছিলেন স্বাগতিক বোলারদের। আর যার সুবাদে একটি শক্তিশালী ভিত্তি স্থাপিত হয় বাংলাদেশের।

দলীয় ২০৮ এবং ব্যক্তিগত ৯৭ রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান সাকিব। তবে এরই মধ্যে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ১৯৫ রানের জুটি গড়ে ফেলেছিলেন দুজনে। যা স্বাগতিক উইন্ডিজদের বিপক্ষে যে কোন সফরকারী দলের জন্য সর্বোচ্চ রানের জুটি।

এর আগে এই তালিকায় সবার উপরে ছিলেন প্রোটিয়ারা। ২০০৫ সালে ব্রিজটাউনে ১৯৪ রানের জুটি করেছিলেন আফ্রিকান ব্যাটসম্যান ডিপেনার এবং ক্যালিস। সাকিব তামিমের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছে দক্ষিন আফ্রিকা।

২০১৭ সালে হেলস এবং রুটের ১৯২ রানের জুটির মধ্য দিয়ে তৃতীয় স্থানে আছেন ইংলিশরা। আর এ তালিকায় চতুর্থ জায়গাটি অজিদের। সেন্ট জর্জেসে ২০০৮ সালে ১৯০ রানের জুটি করেছিলেন পন্টিং এবং ওয়াটসন।

ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে সফরকারী দলের যে কোন উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটিঃ

১৯৫ – সাকিব, তামিম (প্রোভিডেন্স, ২০১৮)

১৯৪ – ডিপেনার, ক্যালিস (ব্রিজটাউন, ২০০৫)

১৯২ – হেলস, রুট (ব্রিজটাউন, ২০১৭)

১৯০ – পন্টিং, ওয়াটসন (সেন্ট জর্জেস, ২০০৮)

Related Articles

Close