আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেট

আশরাফুল-মুশফিক ৬১

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মুশফিকুর রহিমের অভিষেক হয়েছিল ২০০৫ সালে। সেবার লর্ডস টেস্টের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রেখেছিলেন জাতীয় দলের এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

এরপরে সাদা পোশাকে ৬১ টি টেস্ট খেলে ফেলেছেন মুশফিক। হয়েছেন রেকর্ডের ভাগীদারও। এই মুহূর্তে মোহাম্মদ আশরাফুলের সঙ্গে যৌথভাবে সর্বাধিক টেস্ট খেলার কীর্তি তার।

কিন্তু এই কীর্তি খুব দ্রুতই নিজের নামে করতে যাচ্ছেন মুশফিক। বৃহস্পতিবার রাতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচে খেলতে নামবেন মুশফিক।

আর তা হবে তার ক্যারিয়ারের ৬২তম টেস্ট ম্যাচ, যা কোন বাংলাদেশী ক্রিকেটারের জন্য রেকর্ড। এছাড়া লাল সবুজের পোশাকে সবচেয়ে বেশি টি-টুয়েন্টিও খেলেছেন মুশফিক (৭১ টি)।

আর জাতীয় দলের হয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ ওয়ানডে খেলার কৃতিত্বও তার (১৮৪ টি)। টাইগারদের অধিনায়কত্ব করার সৌভাগ্যও হয়েছে ৩১ বছর বয়সী এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানের।

তার নেতৃত্বে সাতটি টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ দল। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও শ্রীলংকার মত বড় দলগুলোর বিপক্ষে টেস্ট জয় মুশফিকের অধিনায়কত্বের। সময়েই। তবে চলতি বছরের শুরুতে টাইগারদের টেস্ট দলে অধিনায়কত্বের পরিবর্তন এনে সাকিব আল হাসানকে অধিনায়কত্ব দেওয়া হয়েছিল।

 

এইমাত্র পাওয়া, যে দল বিশ্বকাপ জিতবে জানাল সেই উট

 

প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে ক্রোয়েশিয়া। সেমিতে ইংল্যান্ডকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে স্বপ্নের ফাইনালে তারা। অন্যদিকে শক্তিশালী বেলজিয়ামকে টপকে ফাইনালে উঠেছে একবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। দু’দল মহারণে নামার আগেই ফাইনালে কে জিতবে সেটা নির্ধারণ করে ফেলেছে উট শাহীন। শাহীনের মতে, বিশ্বকাপ জিতে ইতিহাস গড়বে ক্রোয়েশিয়া।

বিশ্বকাপ আসলেই ভবিষ্যদ্বাণী দিতে মুখোড় হয়ে ওঠে অনেক প্রাণী। ২০১০ সালে অক্টোপাস পলকে এখনো সবাই মনে রেখেছে তার ক্ষুরধার ভবিষ্যদ্বাণীর জন্য। স্পেনকে বিশ্বকাপ জয়ী বলেছিল সে এবং হয়েও ছিল তাই। ২০১৪ বিশ্বকাপে শাহীন নামের এই উট ভবিষ্যদ্বাণী দিলেও তা কার্যকরী ছিল না।

রাশিয়া বিশ্বকাপে দেখা গিয়েছে অ্যাকিলিস নামক এক রুশ বিড়ালকে। কিন্তু আলোচনায় আবারো সেই শাহীন উট। চলতি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে তেমন সুবিধা করতে না পারলেও দ্বিতীয় রাউন্ডে আট ম্যাচের মধ্যে ছয়টিতেই সঠিক ভবিষ্যদ্বাণী দিয়েছে এই উট। কোয়ার্টার ফাইনালেও প্রায় সবগুলো ম্যাচে সঠিক জয়ী খুঁজে নিয়েছে উট। সেমিফাইনালের দুটি ম্যাচেরই সঠিক জয়ী চিহ্নিত করেছে শাহীণ।

উটের সামনে দুটি কাঠিতে করে দুই দেশের পতাকা রাখা হয়। তারপর উটটি একটি পতাকাকে বেছে নেয়। এর মাধ্যমেই নির্ধারিত হয়ে থাকে ম্যাচটি আসলে কোন দেশ জিতবে। এবার উট ‘শাহীন’ ফাইনালের বিজয়ী হিসেবে বেছে নিয়েছে ক্রোয়েশিয়াকে। তাহলে কি ২০০৬ সালের মত এবারও ফাইনাল থেকে খালি হাতে বিদায় নিবে ফ্রান্স? প্রশ্নটা ফাইনালের জন্যই তোলা থাকলো।

Related Articles

Close