আন্তর্জাতিক ফুটবলফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ ২০১৮ফুটবল

স্টেডিয়ামে প্রবেশে ছয় সৌদি নারীর ওপর নিষেধাজ্ঞা

বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ দেখার জন্য হাতে নিজ দেশের পতাকা নিয়ে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন ৬ সৌদি নারী। কিন্তু তাদেরকে উদ্বোধনী ম্যাচ দেখার অনুমতি দেয়নি কর্তৃপক্ষ। এমনকি তাদেরকে পুরো টুর্নামেন্টেই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। গতকাল এ নিয়ে এক বিবৃতি দেয় সৌদি আরব জাতীয় ফুটবল দলের স্পনসর কোকাকোলা। কোকাকোলার মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক পরিচালক উমর বেনিস এ বিষয়টি নিয়ে খোলাশা করে কিছুই বলেননি। তিনি বলেন, এটা কোনো লিঙ্গ বৈষম্যের কারণে হয়নি। এখানে অনেক বিষয় জড়িত রয়েছে।

তবে বিশ্বকাপে এ ৬ নারীর খেলা দেখার ব্যবস্থা করতে যথেষ্ট চেষ্টা করবেন বলে জানান বেনিস। তিনি বলেন, এ আসরে তাদের স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার সম্ভাবনা খুবই কম। কিন্তু আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি। এবারে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে উপস্থিত থাকবেন সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। চলতি বছরের শুরুতে প্রথমবারের মতো নারীদের গ্যালারিতে বসে খেলা দেখার অনুমতি দেয় সৌদি আরব। তবে স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার বিষয়ে কিছু বিধিনিষেধ দেয়া হয়েছে দেশটির পক্ষ থেকে।

সম্প্রতি দেশটির নারীদের উপর থেকে গাড়ি চালানোর নিষেধাজ্ঞাও তুলে নিয়েছে সৌদি আরব সরকার। পতাকা বহনকারী এক নারী বলেন, শুধু বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ নয়, পুরো আসরেই হয়তো আমাদের গ্যালারিতে বসে আর খেলা দেখা হবে না। তবে কেন খেলা দেখতে পারবেন না এ বিষয়ে কিছুই বলেননি তিনি। এবারের আসরে ‘এ’ গ্রুপে সৌদি আরবের প্রতিপক্ষ রাশিয়া, মিশর ও উরুগুয়ে। ১২ বছর পর বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে সৌদিরা।

সর্বশেষ ২০০৬’র জার্মানি বিশ্বকাপে অংশ নেয় তারা। ঐ আসরে গ্রুপ পর্বেই বিদায় নেয় তারা।

 

তিক্ত অধ্যায় পেছনে ফেলার ডাক রামোসের

 

শুক্রবার পর্তুগালের সঙ্গে খেলা দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু হবে স্পেনের। তবে শেষ ৪৮ ঘণ্টা বেশ উত্তাল গেছে দলটির জন্য। বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র দুই দিন আগে কোচকে বরখাস্ত করেছে দেশটির ফুটবল ফেডারেশন। বিশ্বকাপের পর রিয়াল মাদ্রিদের দায়িত্ব নেওয়ার ঘোষণা দিয়ে ফেডারেশন সভাপতির তোপে পড়েন কোচ জুলেন লোপতেগুই। তার স্থলে এসেছেন ফার্নান্দো হিয়েরো। তবে পরিস্থিতির নাটকীয়তা ভালোই পেয়ে বসেছে দলকে।

এই পরস্থিতিতে দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ও ডিফেন্ডার সার্জিও রামোস ডাক দিয়েছেন ঐক্যের। নিজের ক্লাব সতীর্থ ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগালের সঙ্গে ম্যাচের আগে তিনি বললেন, ‘যত দ্রুত সম্ভব এই অধ্যায় পার করতে হবে আমাদের। আমাদের জন্য সময়টা বেশ সুখকর ছিল না। তাই যত দ্রুত আমরা এই তিক্ত অধ্যায় পেছনে ফেলবো, ততই ভালো।’
নতুন কোচ সম্পর্কে তিনি দলীয় সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমরা সবাই হিয়েরোকে শ্রদ্ধা করি। তাকে অনেক দিন ধরেই আমরা চিনি। এই মুহূর্তে তিনি আদর্শ ব্যক্তি।’

এক পর্যায়ে তিনি বলেন, ‘আমি এই সংবাদ সম্মেলন ছেড়ে উঠে যেতে চাই। মনে হচ্ছে শেষকৃত্যনুষ্ঠানে এসেছি! আরে আমরা আগামীকাল বিশ্বকাপ শুরু করতে যাচ্ছি, যেটা বেশ আনন্দের ঘটনা।’
বুধবার প্রাক্তন কোচ লোপেতেগিকে অপসারণ করা হয়। রাতারাতিই তিনি ফিরে যান মাদ্রিদে। ফলে প্রথম ম্যাচ শুরুর আগের দলীয় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হন অস্থায়ী কোচ হিয়েরো।

Related Articles

Close