আন্তর্জাতিক ফুটবল

পগবা একাদশ থেকে বাদ যাচ্ছেন?

ইতালির বিপক্ষে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি ম্যাচে বাজে খেলে সমালোচনা কুড়িয়েছেন ফ্রান্সের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য মিড ফিল্ডার পগবা। বাজে খেলার কারনে সমালোচকরা তাঁকে একদম ধুয়ে দিচ্ছেন। এতে করে নতুন ভাবে তাঁকে নিয়ে ভাবতে হচ্ছে ফ্রান্সের কোচ দেশমের।

ফ্রান্স প্রত্যেকটি জায়গার জন্য বিকল্প খেলোয়াড় নিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপে যাচ্ছে। প্রতেকটি জায়গায় একের অধিক খেলোয়াড়কে খেলানোর সুযোগ থাকায় তিনি বলেন, ‘আমার হাতে অধিক সুযোগ রয়েছে। বিকল্প খেলোয়াড় খেলতেও পারে’।

পগবার উপর অবশ্য এখনও আস্থা হারাননি কোচ। তিনি বলেন, ‘ তাঁকে মাঠে নামানোর মানে হচ্ছে সে দলের জন্য একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। আমি জানি দলের জন্য সে কি করতে পারে। এই জন্যই সে এতদূর আসতে পেরেছে। আমি এখনো ওর উপর আস্থা রাখছি’।

 

১৬ কোটির বাংলাদেশে কি একজন লেগ স্পিনার নেই?

১৬ কোটির বাংলাদেশে কি একজন লেগ স্পিনার নেই? টেস্ট স্ট্যাটাসের ১৮ বছরেও একজন আন্তর্জাতিক মানের লেগ স্পিনার তৈরি করতে পারেনি বাংলাদেশ। ক্রিকেট বিশ্বে প্রায় সকল দেশেই যেখানে একাধিক লেগ স্পিনার রয়েছে। সেখানে বাংলাদেশে মশাল জ্বালিয়েও একজন লেগ স্পিনার খুঁজে পাওয়া কষ্ট। জুবায়ের লিখন এবং তানভির হায়দার কিছুটা আশার আলো দেখালেও সেই আলো মিলিয়ে যেতে বেশি দেরি হয়নি।

সাবেক কোচ হাথুরুসিংহের অভিযোগ ছিল জুবায়ের প্র্যাকটিসে উদাসীন, একজন লেগ স্পিনার ঘন্টার পর ঘণ্টা প্র্যাকটিস করবেন, লাইন লেংথ আরও নিখুত করবেন ,নতুন নতুন অস্ত্র যোগ করবেন ভান্ডারে। কিন্তু আমাদের লেগিরা সেই পথে হাঁটছেন না। তবে ভালো মানের লেগ স্পিনার উঠে আসার পথে আমাদের ক্রিকেট কাঠামোতেও রয়েছে বড় বাধা। ঘরোয়া দল গুলোতে বা হাতি স্পিনার দের প্রাধান্য বেশি। লেগ স্পিনাররা একটু খরচে বলে সুযোগ পায় কম।

আধুনিক ক্রিকেটে ফ্ল্যাট পিচে বা সবুজ উইকেটে অন্যান্য স্পিনারদের থেকে লেগ স্পিনাররা বেশি কার্যকরী। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরাও লেগ স্পিনে অনেক বেশি দুর্বল। তাঁর কারন আমাদের নেটে বল করার জন্যও কোন ভালো লেগ স্পিনার নেই।

অন্যান্য দলগুলোর দিকে তাকালেই বাংলাদেশের অবস্থা কতোটা করুণ সেটা ফুটে উঠবে। নেপালের মতো দুর্বল দলেও লেগি হিসেবে আছেন সন্দ্বীপ লেমিচান্দ। জিম্বাবুয়েতে রয়েছেন গ্রায়েম ক্রেমার। আর বড় দলগুলোর অবস্থা আরও অনেক ওপরে।

কয়েকদিন আগে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ভারতের চায়নাম্যান কুলদিপ জাদব আর চাহালের লেগ স্পিনে ঘরের মাঠেই ঘায়েল হয় সাউথ আফ্রিকা। এই দুই স্পিনারের দাপটে আশ্বিনের মতো বোলারের জায়গা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এছাড়াও করণ শার্মার মতো উদীয়মান লেগ স্পিনার রয়েছে প্রতিবেশী দেশটিতে।

আমাদের আরেক প্রতিবেশী শ্রীলঙ্কায় চায়নাম্যান সান্দাকান, সিকুগে প্রসন্না, জেফ্রি ভেণ্ডাস্রে, জিবন মেণ্ডীস, এবং হাসারাঙ্গার মতো দারুণ সব লেগ স্পিনার রয়েছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজে আছেন বিশু, বদ্রি আর সাউথ আফ্রিকায় আছেন চায়নামেন শামসি, ইমরান তাহির। অস্ট্রেলিয়ায় আছেন সুইপসন, জাম্পা । ইংল্যান্ড এ আদিল রাশিদ , মেসন ক্রেন। নিউজিল্যান্ডে রয়েছেন ইশ সধি।

আর আফগানিস্তানের রাশিদ খান তো রীতিমত বিস্ময় উপহার। সর্বশেষ বিপিএল খেলতে এসে রশিদ খান বলেছিলেন, তাদের একটি একাডেমীতেই ১২০ জন লেগ স্পিনার অনুশীলন করেন।

তবে স্বপ্ন দেখতে তো দোষ নেই। তাই এখনও টাইগার সমর্থকরা স্বপ্ন দেখেন- বাংলাদেশের লেগ স্পিনারদের গুগলিতে ঘায়েল হবেন জাঁদরেল সব ব্যাটসম্যানরা। দেশের ক্রিকেটের অগ্রযাত্রায় এমন লেগ স্পিনার তৈরি করা এখন সময়ের দাবি। ক্রিকেট বোর্ডের উদাসীনতায় এই প্রক্রিয়া যেন আর দীর্ঘতর না হয় সেই দাবি ক্রিকেট প্রেমীদের।

Related Articles

Close