আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

আরো একবার অবসর নিলেন আফ্রিদি!

ক্রিকেটের ইতিহাসে যতো কৌতুক আছে, তার মধ্যে শহিদ আফ্রিদির অবসর নেয়া সম্ভবত শীর্ষ দিকেই থাকবে। বেশ কয়েকবার জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়ে বেশ কয়েকবার ফিরেছেন তিনি। সর্বশেষ অবসর নেয়ার পরও বলে রেখেছিলেন যে, পরিবার থেকে নাকি আবার ফেরার তাড়া দেয়া হচ্ছে! সেই তাড়ায় অবশ্য জাতীয় দলে আর ফেরা হয়নি তার। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ঠিকই ফিরেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার রাতে তিনি মাঠে নামেন বিশ্ব একাদশের হয়ে। এই ম্যাচ চলার সময়ই আফ্রিদি ঘোষণা দেন যে, অবসর ভেঙে আর ফিরবেন না তিনি!

এই ম্যাচটা অবশ্য খেলারই কথা ছিলো না শহিদ আফ্রিদির। প্রথম দফায় দলে থাকলে পায়ের ইনজুরির কারণে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন তিনি। কিন্তু বিশ্ব একাদশের অধিনায়ক ইয়ন মরগান ইনজুরিতে পড়ায় শহিদ আফ্রিদিকে আবার ডাকে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এই ডাকে আর সাড়া না দিয়ে পারেননি তিনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বিশ্ব একাদশের বিশেষ এই ম্যাচকে আগেই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল। সুতরাং এই ম্যাচ দিয়ে ২০১৬ সালের পর আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা নিশ্চিত হয় আফ্রিদির। কিন্তু ম্যাচটা খেলার সময় আফ্রিদি জানিয়ে দেন এরপর আর ফেরা হবে না তার। এই কথাও অবশ্য আফ্রিদির মুখে প্রথমবার নয়! ১৯৯৬ সাল থেকে ক্রিকেট খেলতে শুরু করা আফ্রিদির মন এবারও ক্রিকেট ছাড়ার জন্য পুরো প্রস্তুত কিনা, তা নিয়ে সংশয় থাকছেই।

বিশ্ব একাদশের হয়ে বোলিং করার সময় আফ্রিদির সঙ্গে মাঠে নেমে কথা বলেন নাসের হোসেইন। ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ককে আফ্রিদি বলেন, ‘আর হয়তো ফেরা হবে না। আমার ইনজুরির অবস্থা ভালো নয়। গত পিএসএলের পর আর খেলতে নামিনি। দীর্ঘদিন পর আজই প্রথম বল হাতে নিলাম। এটাই আমার শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ।’

এই ম্যাচের আগে ৯৮টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলেছেন আফ্রিদি। অর্থাৎ এই ম্যাচটি তার ৯৯তম টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ। সে হিসেবে আরো একটা ম্যাচ যদি তিনি খেলেন, তাহলে খেলা হয়ে যাবে মোট ১০০টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। এতোগুলো আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলেননি আর কোনো ক্রিকেটার। এই কীর্তি গড়ার সুযোগ হলে শহিদ আফ্রিদি যদি আবার ফেরেন, অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

Related Articles

Close