আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

দুই সিরিজে ৮-০-তে হোয়াইটওয়াশ বাংলাদেশ

স্বাগতিক আফ্রিকার সাথে তিন ম্যাচ টি২০ সিরিজে টানা দুই ম্যাচে পরাজিত হওয়ার মাধ্যমেই সিরিজ হেরেছিল বাংলাদেশের নারী দল। আজ সিরিজের ৩য় ম্যাচে বৃষ্টির কারনে ৯ ওভারে খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ৪ উইকেট হারিয়ে ৬৪ রান করে আফ্রিকা। বাংলাদেশের সামনে জয়ের সুযোগ থাকলেও ৯ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪১ রানেই থামে বাংলাদেশের ইনিংস। ফলে ৩ ম্যাচ সিরিজ ৩-০তে হোয়াইটওয়াশ হয় বাংলাদেশ দল।

এর আগে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজেও লজ্জাজনক পরাজয় হয় বাংলাদেশের, কোন ম্যাচেই ব্যাটে বলে দাঁড়াতে পারেনি রোমানারা। বলার মতো পারফর্ম করতে পারেননি কোন ক্রিকেটার, ৫ ম্যাচে ফারজানা হক, রুমানা আহমেদ ও শামিমা সুলতানার ফিফটিই ছিলো বলার মতো পারফর্ম, এছাড়া বলার মতো কোন পারফর্মই ছিলো না রুমানাদের। ওয়ানডে সিরিজ ৫-০ ও টি২০ সিরিজ ৩-০ মিলিয়ে ৮-০ তেই শেষ হলো বাংলাদেশ মহিলা দলের আফ্রিকা সফর।

 

ক্রিকেট মাঠে জঙ্গিহানার নিন্দায় রশিদ

আফগান ক্রিকেট যখন মধ্যগগনে, ঠিক তখনই জঙ্গিদের নিশানায় বাইশ গজ৷ জালালাবাদের এক স্টেডিয়ামে ক্রিকেট ম্যাচ চলাকালীন বিস্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছেন ৮ জন৷ আহত ৪৫৷ ঘটনার নিন্দায় ক্রিকেটবিশ্ব৷

আফগানিস্তানের তারকা ক্রিকেটার রশিদ খান থেকে বিশ্বকাপ জয়ী পাক অধিনায়ক ইমরান খান ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন৷ এই মুহূর্তে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে আইপিএল খেলতে ভারতে রয়েছেন রশিদ৷ বিশ্ব ব়্যাংকিংয়ে এক নম্বরে থাকা টি-’২০ বোলার ঘটনার তীব্র নিন্দা করে নিহতের জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন৷ টুইটারে রশিদ লিখেছেন, ‘ভাই তোমাদের মিস করব৷ তোমাদের আত্মার শান্তি কামনা করি৷ নেনগ্রাহর শহরের নাম রোশন করার জন্য তোমারা কঠর পরিশ্রম করেছে৷ তোমাদের আত্মত্যাগ সবাই মনে রাখবে৷’

রমজান উপলক্ষ্যে আফগানিস্তানের পূর্ব জালালাবাদের নাজিমাবাদে একটি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছিল৷ টুর্নামেন্টটির আয়োজক ছিলেন হিদায়াতুল্লাহ জহির৷ শুক্রবার সন্ধ্যায় ম্যাচ চলাকালীন ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছেন টুর্নামেন্টের আয়োজকও৷ পরপর বিস্ফোরণে একটি শিশু মারা গিয়েছে৷ কোনও সন্ত্রাসবাদী সংগঠন এখনও এই ঘটনার দায় স্বীকার করেনি৷ যদিও পূর্ব আফগানিস্তানে তালিবান এবং ইসলামিক স্টেটস জঙ্গিদের ভালো মত প্রভাব রয়েছে৷ মনে করা হচ্ছে রমজানের আগে ধর্মীয় কারণেই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে৷ তিনটি বিস্ফোরণের জন্য কী ধরণের বিস্ফোরক ব্যবহার করা হয়েছিল তা এখনও জানা যায়নি৷

একটি বিবৃতিতে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরফ ঘানি কড়া ভাষায় এই ঘটনার সমালোচনা করেছেন৷ বিবৃতিটিতে তিনি বলেন, ‘পবিত্র রমজান মাসে এই ধরণের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে সন্ত্রাসবাদীরা আরও একবার প্রমাণ করল ওরা কোনও ধর্মকে সত্যিই মানে না৷ সন্ত্রাসবাদীরা মানবতার শত্রু৷’ ১৪ জুন বেঙ্গালুরু স্টেডিয়ামে ভারতের সঙ্গে একমাত্র টেস্ট খেলতে আসছে আফগান ক্রিকেট দল তার আগে ক্রিকেট মাঠে এরকম বিস্ফোরণ নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে ক্রিকেটের উপর৷

প্রাক্তন পাক অধিনায়ক ঘটনার দুঃখপ্রকাশ করে টুইটারে লিখেছেন, ‘জালালাবাদের ক্রিকেট মাঠে জঙ্গিহানার তীব্র নিন্দা করছি৷ এটা অত্যন্ত দুঃখের যে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে যখন ক্রিকেট মাথা তোলার চেষ্টা করছে, ঠিক তখনই ওদের টার্গেট করা হচ্ছে৷’ ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে আইসিসি-র চিফ একজিকিউটিভ ডেভ রিচার্ডসনও৷

Related Articles

Close