আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

সোহানকে আফগানিস্তান সিরিজে না নেওয়ার পিছনে বড় পরিকল্পনা

আগামী জুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। আর সে লক্ষ্যেই এবার ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু আসন্ন এই সিরিজের জন্য দলে জায়গা পাননি নুরুল হাসান সোহান। সর্বশেষ নিদাহাস ট্রফির স্কোয়াডে থাকলেও একাদশে জায়গা পাননি বাংলাদেশ দলের এই তরুণ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের।

নিদাহাস ট্রফিতে নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ পাননি এই তরুন। এবার আসন্ন আফগানিস্তান সিরিজের দলেই নেই তিনি। তবে তাকে নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানান, সামনের ব্যস্ত সূচি মাথায় রেখেই তাকে আফগানিস্তান সিরিজের জন্য বাদ দেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আফগানিস্তানে তিনটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হবে। সংক্ষিপ্ত পরিসরের খেলা, এখানে কাউকে ঠিকঠাক দেখাটাও কঠিন। সামনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর আছে। সামনের ব্যস্ততার কথা চিন্তা করেই সোহানকে ড্রপ দেওয়া হয়েছে। ওকে নিয়ে আমাদের অন্যরকম চিন্তা-ভাবনা আছে।’

এছাড়াও আসন্ন সিরিজের জন্য দলে দুইজন উইকেটরক্ষক আছেন- মুশফিকুর রহীম এবং লিটন কুমার দাস। আস্নন সিরিজে তৃতীয় কোন উইকেটরক্ষক চান না নির্বাচকরা। তিনি বলেন, ‘দলে দুইজন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান আছে। লিটনের সঙ্গে মুশফিকও আছে। মুশফিক খুব ভালো করছে।

 

ওয়ানডের পরে টি-২০তেও হোয়াইটওয়াশ হলো বাংলাদেশ

প্রস্তুতি ম্যাচে যে বাংলাদেশ দলকে দেখা গিয়েছিলো দক্ষিন আফ্রিকায়, কিন্তু সেই বাংলাদেশকে আর খুজে পাওয়া যায়নি মূল ম্যাচগুলোতে। ৫ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পরে বাংলাদেশ দল হোয়াঈতওয়াশ হলো টি-২০তেও।

বৃষ্টির কারনে ম্যাচের পরিসর ২০ ওভার থেকে কমিয়ে ৯ অভার করা হয়। সেই ম্যাচে প্রথমে টস জিতে বল করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ।

নির্ধারিত ৯ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ দাঁড়ায় ৪ উইকেট হারিয়ে ৬৪ রান। স্বাগতিকদের হয়ে ব্রিৎস সর্বোচ্চ ২৯ রান করেন। আর নিকার্কের ব্যাট থেকে আসে ১২ রান।

বাংলাদেশের পক্ষে বল হাতে ২টি উইকেট নেন অধিনায়ক সালমা খাতুন। মাত্র ৬৫ রানের মামুলি লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারে কোন রান নিতে পারেনি বাংলাদেশ। এরপর থেকেই খেই হারিয়ে ফেলেন তারা।

নিয়মিত বিরতিতে উইকেট বিলিয়ে আসতে থাকেন নারী ক্রিকেটাররা। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৯ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে মাত্র ৪১ রান স্কোরবোর্ডে তুলে জাহানারার দল।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১২ রান করেন আগের ম্যাচের হাফ সেঞ্চুরিয়ান শামীমা। এছাড়াও ফাহিমা করেন ১০ রান। এই সিরিজ হারা পরে অনেকতাই খালি হাতে ফিরতে হচ্ছে বাংলাদেশকে।

Related Articles

Close