ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেট

‘মাশরাফি অবসর নেওয়ার পর কী হবে দলের?

দীর্ঘ সময় ধরে দেশের ক্রিকেটের সেরা পেসার মাশরাফি বিন মুর্তজা। ইনজুরির কারণে সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি, তবে চালিয়ে গেছেন চেষ্টা।

‘তিন বছর ‘তিন বছর আউট অব ক্রিকেট ছিলাম’- রাজু আউট অব ক্রিকেট ছিলাম’

বর্তমানে খেলছেন শুধুই ওয়ানডে। টেস্ট ও টি-২০ থেকে দূরে রয়েছেন এই আততায়ী ইনজুরির কারণেই। ওয়ানডেতে মাশরাফি পেস আক্রমণভাগকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেও টেস্ট ও টি-২০’তে তাই ভালো নেতৃত্বের অভাব রয়েছেই। মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ বা কামরুল ইসলাম রাব্বির মতো বোলাররা প্রত্যাশার জন্ম দিলেও ব্যর্থ হচ্ছেন তা পূরণে। সবকিছু মিলিয়ে জাতীয় দলের একসময়ের অন্যতম সেরা আরেক পেসার আবুল হাসান রাজুর প্রশ্ন, মাশরাফি অবসর নেওয়ার পর কী হবে দলের?

সিলেটের ছেলে রাজু শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে বলেন, ‘মাশরাফি ভাই তো ভালোই খেলে যাচ্ছেন। জানি না মাশরাফি ভাই ছাড়ার পর কী হবে!’

তিনি জানান, মাশরাফি চলে যাওয়ার পর যে শূন্য জায়গা সৃষ্টি হবে সেটি পূর্ণ করতে নিজেকে তৈরি করছেন তিনি, আমি আমার সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করছি ওই জায়গাটা পূরণ করার জন্য। তাই বাকিটা আল্লাহর ইচ্ছা। দেখি আল্লাহ কী করেন।’

জাতীয় দলে রাজু নেই অনেকদিন ধরে। তবে আবারও সুযোগ পেতে নিজের সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করে যাচ্ছেন তিনি, ‘জাতীয় দলে খেলা সবার লক্ষ্য ও স্বপ্ন থাকে। কিন্তু জানি না ওই জায়গাটায় খেলা কেন হচ্ছে না। আমি আমার কাজটা করে যাচ্ছি। টি-টোয়েন্টিতে জাতীয় দলে এখনও খেলা হয়নি। ইনজুরির আগে খেলেছিলাম। যদি আবার সুযোগ পাই আমার সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করবো।’

রমজান মাসেই চলছে পেসারদের বিশেষ ক্যাম্প, যেখানে আছেন রাজুও। লঙ্কান কোচ চম্পকা রমানায়েকের অধীনে চলমান এই ক্যাম্পে সুযোগ পেয়েছেন পরীক্ষিত পেসাররাই। রাজু বলেন, ‘রমজান মাসে একটু কষ্ট হবে আমাদের। রোজা রেখেই সে কাজগুলো আমাদের করতে হবে। চম্পকার সঙ্গে এর আগেও আমি কাজ করেছি। ২০১২ সালে কাজ করেছি। জাতীয় দলেও করেছি। এবার হয়তো ভিন্ন কিছু নিয়ে আসবেন তিনি। দেখি কী হয়!

 

আগামী জুনে ভারতে টি-২০ সিরিজ, রোববার বাংলাদেশের স্কোয়াড ঘোষণা

 

আগামী জুনে ভারতের দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। ঐ সিরিজের জন্য বাংলাদেশের স্কোয়াড ঘোষণা করা হবে আগামী রোববার (২০ মে)।

শনিবার (১৯ মে) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই জানিয়েছে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড- বিসিবি। বিজ্ঞপতিতে বলা হয়, রোববার দুপুর বারোটায় ‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মিডিয়া ব্লকের প্রেস কনফারেন্স জোনে এই স্কোয়াড ঘোষণা করা হবে।

আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের মধ্যকার বহুল আলোচিত এই দ্বিপাক্ষিক সিরিজে অনুষ্ঠিত হবে মোট তিনটি ম্যাচ, যার ফরম্যাট টি-২০। ম্যাচগুলো মাঠে গড়াবে আগামী ৩, ৫ ও ৭ জুন। সবগুলো ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে ভারতের দেরাদুনে। প্রতিটি ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত রাত সাড়ে আটটায়।

কাগজে-কলমে কিংবা শক্তিমত্তার বিচারে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক পিছিয়ে আছে আফগানিস্তানের ক্রিকেট। কিন্তু ফরম্যাটটি যখন টি-২০, বদলে যায় সব হিসেবনিকেশ। এই ফরম্যাটে আফগানিস্তান বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ের মতো অভিজ্ঞ টেস্ট খেলুড়ে দলগুলোর চেয়েও শক্তিশালী। টি-২০ ফরম্যাটের তিন ম্যাচের এই সিরিজে টাইগারদের ভালো করতে হলে তাই নামতে হবে পূর্ণ শক্তি নিয়েই।

এর আগে অনেকেই আফগানিস্তান সিরিজে সিনিয়র খেলোয়াড়দের বিশ্রামে রেখে দল পাঠানোর অভিমত দিয়েছিলেন। সে সময় আলোচনা হচ্ছিল ওয়ানডে সিরিজ আয়োজনের ব্যাপারে। কিন্তু ফরম্যাটটি যেহেতু নির্ধারিত হয়েছে টি-২০, যেখানে আফগানিস্তান এগিয়ে বাংলাদেশের চেয়ে; তাই অপেক্ষাকৃত দুর্বল দল পাঠানোর সম্ভাবনা নাকচ হয়ে যাওয়ার সুযোগই বেশি।

কন্ডিশনের সাথে খাপ খাইয়ে নিতে সিরিজের সপ্তাহখানেক আগেই দেরাদুনে উড়াল দিতে পারে বাংলাদেশ দল। তবে খানিক বিপত্তি আছে সেখানেও। ঐ অঞ্চলের সাথে ভারতের অন্য অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা একটু জটিল। দিল্লি থেকে বিমানযোগে দেরাদুন যাওয়ার সু-ব্যবস্থা নেই বললেই চলে। এ কারণে কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার দেরাদুনে ভেন্যু বানাতে আপত্তি জানিয়েছিলেন।

তবে শেষপর্যন্ত টনক নড়েনি বিসিবির। বরং বিসিবির প্রতিনিধি দেরাদুন পরিদর্শন শেষে জানিয়েছেন সন্তুষ্টি। ধারণা যদি সত্যি হয়ে থাকে, তাহলে আফগানিস্তানের পাশাপাশি জুনের শুরুর দিকে বাংলাদেশের বড় প্রতিপক্ষের নাম দেরাদুন ও এর আবহাওয়াও।

Related Articles

Close