ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেট

‘ধারাভাষ্যকার না হলে সাকিব আল হাসান হতাম’

ক্রীড়াপ্রেমী বাংলাদেশিদের চেনা ধারাভাষ্যকার চৌধুরী জাফরউল্লাহ শারাফাত। ১০ মে তার জন্মদিন। বিশেষ এই দিনটিতে জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে প্রিয়.কমের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি।

ধারাভাষ্যকার হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে চৌধুরী জাফরউল্লাহ বলেন, ‘শৈশব, কৈশোর থেকে আমি এখনো পর্যন্ত যাই করি, সবসময়ই নাম্বার ওয়ান হতে চেয়েছি, হয়েছিও। মানে ধারাভাষ্য বলেন আর ব্যবসা বলেন, আর যদি জব করতাম, সেখানেও নাম্বার ওয়ান হতাম। আমার স্বপ্নগুলো আমি বোঝার পর থেকেই ওভাবেই দেখেছি। আমার শৈশবের স্বপ্নটাও ওই রকম ছিল, যা করেছি নাম্বার ওয়ান, কিংবা এখন পর্যন্তও যা করি, নাম্বার ওয়ান। তবে আমি সবসময় কল্পনার সঙ্গে মিল রেখেই আমি আমার জীবনটা যাপন করি।’

উপস্থাপনায় না এসে ভিন্ন কোনো পেশায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা যেত কি না জানতে চাইলে জনপ্রিয় এই ধারাভাষ্যকার বলেন, ‘পৃথিবীতে যারা বিখ্যাত মানুষ, তাদেরকে একেকজন একেকভাবে চিনে। কাউকে নামে চিনে, চেহারাতে চিনে না, আবার কাউকে চেহারাতে চিনে, কিন্তু নামে চিনে না। কিন্তু গলার শব্দে চিনে।

আমাকে কিন্তু মানুষ চেহারা, নাম ও কণ্ঠ-তিন দিক থেকেই চিনে। আর যদি আমি ধারাভাষ্যকার না হতাম, তাহলে আমি সাকিব আল হাসান হতাম। মানে আমি নাম্বার ওয়ান ক্রিকেটার হতাম। কিন্তু ক্রিকেট খেলতে গিয়ে পাটা ভেঙে যায়, যার কারণে আমার আর খেলা হয়নি।’

পা ভাঙার পরও দমে যান নি শারাফাত। ভাবলেন যেভাবেই হোক তিনি ক্রিকেটের সঙ্গেই থাকবেন। এরপর মনোযোগ দিলেন কমেন্ট্রির দিকে। তার ভাষ্য, ‘সারা পৃথিবীতে যারা কমেন্ট্রি করে, তাদের দেখে মনে হতো আমি যদি কমেন্ট্রি করি, তাদের থেকে খারাপ করব না।

এখনকার অনেক বিখ্যাত কমেন্টেটর রয়েছেন, যারা এক সময় বিখ্যাত খোলায়াড় ছিলেন। তারা যখন খেলোয়াড় ছিলেন, তখন থেকেই কিন্তু আমি কমেন্ট্রি করতাম। আমি ক্লাস নাইন থেকেই কমেন্ট্রি করি। ক্রিকেটার হতে পারিনি বলেই ধারাভাষ্যকার হওয়া। আমি আন্তস্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় ক্রিকেট খেলেছি।’

সময় কিংবা বয়সের সঙ্গে সঙ্গে জন্মদিনের আনন্দের উপলক্ষ্যগুলো বদলে যায়। বিষয়টি নিয়ে শারাফত বলেন, ‘ছোটবেলার যে জন্মদিন বলতে মায়ের কাছে গিয়ে একটা লাল জামা দাবি করা। তখন আমার যারা ছোটবেলার বন্ধু ছিলেন, তাদের মধ্য থেকে কারো লাল জামা পছন্দ হলে সেটি চুরি করে নিয়ে মাকে দেখানো, মা আমার এমনই একটা লাল জামা লাগবে।

তারপর যখন মা কিংবা বাবা যখন জামা কিনে দিত, তখন আবার গিয়ে ওই জামাটা ফেরত দিয়ে আসতাম। এখন ওই বিষয়টা মিস করি। সেই মজাটা আসলে আলাদা। বয়স যত বাড়ে আনন্দের উপলক্ষ্যগুলোও বদলাতে থাকে। আমি খুব ক্লিন জীবনযাপন করি। আমি যেন আজীবন এটা মেনটেইন করে যেতে পারি।’

এবারের জন্মদিন পালনের বিষয়ে চৌধুরী জাফরউল্লাহ শারাফাত জানান, তিনি কখনোই আনুষ্ঠানিকভাবে জন্মদিন পালন করেন না। তার যমজ শিশু রয়েছে। বোঝার পর থেকেই তারা রাত ১২টার পর তার কানের কাছে এসে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানায়। প্রতিবারের মতো তিনি সন্তানদের নিয়ে লং ড্রাইভে যাবেন। এরপর পরিবারের সবাইকে নিয়ে রাতের খাবার খেতে যাবেন ঢাকার যেকোনো একটি নামী রেস্তোরাঁয়।

জন্মদিনে ভক্ত কিংবা দর্শকদের জন্য বিশেষ কিছু বলার আছে কি না, জানতে চাইলে টেলিভিশন ও রেডিওর জনপ্রিয় এই ধারাভাষ্যকার বলেন, ‘দেশটা তো আমাদের সবার। তাই আমরা মুখে মুখে দেশটাকে ভালো না বেসে, মন থেকে যেন ভালোবাসি। ভালোবাসাটা যেন মনে-প্রাণে লালন করি। দেশটা যেন সবদিক থেকে ভালোভাবে এগিয়ে যায়, সেটাই প্রত্যাশা থাকবে। তাদের দীর্ঘায়ু কামনা করি। তাদের প্রতি অনুরোধ, তারা যেন ভালো মানুষ হিসেবে চলার চেষ্টা করে।’

 

নাইট রাইডার্সের হয়ে ক্ষমা চাইলেন শাহরুখ

 

প্লে অফে যাওয়া হবে কিনা, তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। অন্তত পয়েন্ট টেবিল সেই কথা জানাচ্ছে। সর্বশেষ ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কাছে ১০২ রানের বিশাল হার আরও বিব্রত করেছে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে (কেকেআর)। এমন অবস্থায় দলের ব্যর্থতায় সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাইলেন দলের মালিক বলিউড কিং শাহরুখ খান।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারের মাধ্যমে কেকেআরের ভক্ত-সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চান তিনি। শাহরুখ লেখেন, ‘খেলা হলো স্পিরিটের ব্যাপার। এখানে জয়-পরাজয় কোনোভাবে প্রতিফলিত হয় না। কিন্তু আজ রাতে আমি ‘বস’ (কেকেআর) হিসেবে সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাই। আমাদের টিম স্পিরিটের অভাব ছিল।’

৮ দলের পয়েন্ট তালিকায় এই মুহূর্তে নাইটদের অবস্থান ৫ নম্বরে। বুধবারের ম্যাচে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে জয় পেলে চার নম্বরে অবস্থান করতে পারতেন দীনেশ কার্তিক-ক্রিস লিনরা। তাতে করে প্লে-অফের পথে আরও একটু এগিয়ে যাওয়া হতো সাবেক চ্যাম্পিয়নদের। ১১ ম্যাচে তার জয় ৫ ম্যাচে। হার ৬ ম্যাচে। মোট পয়েন্ট ১০। সমান সংখ্যক ম্যাচ ও পয়েন্ট নিয়ে মুম্বাই এক ধাপ এগিয়ে রান রেটের কারণে।

বুধবার আগে ব্যাট করতে নেমে কলকাতাকে ২১১ রানের লক্ষ্য দেয় মুস্তাফিজুর রহমান-রোহিত শর্মাদের মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। জবাবে মাত্র ১০৮ রানেই গুটিয়ে যায় শাহরুখবাহিনী।

Related Articles

Close