আইপিএলক্রিকেট

আইপিএল ইতিহাসের সবচেয়ে সফল ও ব্যর্থ অধিনায়কদের দেখুন

ফ্রাঞ্চইজি ভিত্তিক ক্রিকেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় আসর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। এই আসরটি নিয়ে ক্রিকেট মহলে চুলছেড়া বিশ্লেষন হয়। এবার প্রকাশিত হলো আইপিএলের ইতিহাসের সেরা অধিনায়কের নাম। আইপিএল ইতিহাসের সবচেয়ে সফল ও ব্যর্থ অধিনায়ক:-

সেখানে অন্তত ৫০ ম্যাচ অধিনায়কত্ব করেছে এমন অধিনাকদের নিয়ে পরিসংখ্যানটি সাজানো হয়েছে। ৫০ ম্যাচ অধিনায়কত্ব করা ক্রিকেটাররা হলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি, গৌতম গম্ভীর, বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, শেন ওয়ার্ন, বিরেন্দ্র শেবাগ এবং শচীন টেন্ডুলকার।

এই ৮ অধিনায়কের মধ্যে সবচেয়ে সফল মহেন্দ্র সিং ধোনি। আইপিএল ইতিহাসের সর্বোচ্চ ১৫৩টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন ধোনি, ৯২টি জয় পেয়েছে দল। জয়ের শতকরা হার ৫৯.২১ শতাংশ।ধোনি ছাড়া আর কেবল গৌতম গম্ভীরের রয়েছে একশ’র বেশি ম্যাচে নেতৃত্ব দেয়ার রেকর্ড। তার নেতৃত্বে ১২৯ ম্যাচ খেলে ৭১টিতে জিতেছে দলগুলো, জয়ের হার শতকরা ৫৫.৪২ শতাংশ।

এই হারে আইপিএলের ইতিহাসের নিকৃষ্টতম অধিনায়কের তকমা সেঁটেছে ভারতীয় দলের দলপতি কোহলির গায়ে। কোহলির অধীনে খেলা ৯২ ম্যাচের মধ্যে ৪২টিতে জয় পেয়েছে ব্যাঙ্গালুরু। শতকরা হিসেবে যা মাত্র ৪৫.৬৫ শতাংশ।

আট অধিনায়কদের মধ্যে সবচেয়ে কম জয়ের হার কোহলিরই। ২০১১ সালের আসর থেকে ব্যাঙ্গালুরুকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ভারতীয় অধিনায়ক। হায়দরাবাদের বিপক্ষে ম্যাচসহ মোট ৯২টি ম্যাচে অধিনায়ক ছিলেন তিনি।

আইপিএলের ইতিহাসে কমপক্ষে ৫০ ম্যাচে অধিনায়কত্ব করা আর কোনো অধিনায়কের এতো কম জয়ের হার নেই। ৪২টি ম্যাচে জয় পাওয়া কোহলি হেরেছেন ৪৭টিতে, ৩টি ম্যাচ হয়েছে পরিত্যক্ত।

অথচ আইপিএলে প্রতিবারই শক্তিশালী দল গঠন করে বেঙ্গালুরু। অধিনায়কে ধোনির পাশাপাশি ব্যর্থ বেঙ্গালুরু।তিন বার ফাইনাল খেললেও দলটি এখনো শিরোপা জিততে পারেনি। শক্তিশালী দল গড়লেও অধিনায়ক কোহলির ব্যর্থতাই কি বেঙ্গালুরু সাফল্যের পথে প্রধান বাঁধা?

 

হায়দরাবাদ শিবিরে বেশ ভালই আছেন সাকিব

 

সাকিব আল হাসান কলকাতা ছেরে সানরাইজার্স হায়দরাবাদে এবার খেলছেন। দীর্ঘ ৭ বছর কলকাতার হয়ে খেলেছিলেন। সেখান থেকে ফিরে এসে একটু আড়ষ্ট ছিলেন সাকিব আল হাসান। কেননা অনেক দিন হয়ত বাংলা ভাষা অনেক দিন বলতে পারবেন না। কিন্তু তারই কলকাতা নাইট রাইডার্স সতীর্থ ঋদ্ধিমান সাহা ও শ্রীবৎস গোস্বামীও হায়দরাবাদ দলে ভিড়ে যাওয়ায় সাকিবের আর বাংলা বলতে হচ্ছে না কোনো সমস্যা।

সম্প্রতি ক্রিকবাজের মুখোমুখি হয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। সেখানে এই এই টাইগার অধিনায়ক জানালেন তার হায়দরাবাদের হালচাল। ঋদ্ধিমান আর গোস্বামীর সঙ্গে আগে থেকেই খাতির থাকায় বেশ জমিয়েই বাংলা বলছেন সানরাইজার্সের এই বাঙালি ‘ত্রয়ী’, ‘আমরা তিনজন কথা বলার সময় বাংলায়ই বলছি। এদের সাথে ইংলিশ বা হিন্দিতে কথা বলতে হয় না বা তার কোন কারণ নেই।

এদিক থেকেই বোঝা যাচ্ছে কলকাতা ছেড়ে সাকিব আল হাসান বেশ ভালই আছেন হায়দরাবাদ। এছাড়াও ইউসুফ পাঠান ও মনিশ পান্ডের সাথেও কলকাতায় খেলেছেন সাকিব আল হাসান। আর হায়দরাবাদের সহকারী কোচ সাইমন হ্যাল্মটকে সাকিব ভাল করেই চিনেন। কেননা তিনি বাংলাদেশ দলের সঙ্গেও তিনি কাজ করেছেন।

উল্লেখ্য, সাকিবের দল সবার আগে প্লে-অফ নিশ্চিত করেছেন। ১০ম্যাচে ৮ জয় দিয়ে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে আছে তারা।

Related Articles

Close