আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

এবার টস থাকবে না টেস্ট ক্রিকেটে!

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ইতিহাসের সূচনা হয় টেস্ট ম্যাচ দিয়ে। তারপর ক্রিকেটে আসে নতুনত্ব। একে একে ক্রিকেটে এসেছে ওয়ানডে, টি-টুয়েন্টির মত সংক্ষিপ্ত ফরম্যাট।আর এখন ক্রিকেট গবেষকরা আরো সংক্ষিপ্ত ওভারে ক্রিকেটকে নিয়ে আসতে চালাচ্ছে নানা গবেষণা।

ক্রিকেটের কোন দল আগে মাঠে নামবে তা নির্ধারিত হয় টসের মাধ্যমে। আর টেস্টে যে দল আগে মাঠে নামবে সে দলই পায় ক্রিসের সুবিধা। আর এখন যদি এই টসটাই না থাকে তাহলে কি হবে? এমন কিছু হতে পারে আগামী বছর শুরু হতে যাওয়া টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে। স্বাগতিক দলকে পিচের সুবিধা না দিতেই এমন সিদ্ধান্ত আসতে পারে আইসিসি’র কাছ থেকে।

টস না হলে কিভাবে ব্যাট বলের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে? হয়ত এমন প্রশ্নই সবার মনে ঘুরছে। আর্ন্তজাতিক ক্রিকেটে
কয়েনের সাহায্যে ১৮৭৭ সালে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মধ্যে ইতিহাসের প্রথম টেস্ট শুরু হয়েছিল । স্বাগতিক অধিনায়ক কয়েন টস করেন, এবং সফরকারী হেড বা টেইল বলে সিদ্ধান্ত দেন । তখন থেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কে আগে ব্যাট করবে বা বল করবে এই সিদ্ধান্ত নির্ধারিত হয়ে আসছে।

এই সিদ্ধন্ত নেয়ার পিছনে রয়েছে একটি বিশেষ কারন, স্বাগতিক বোর্ডগুলো পিচগুলো বানাই তাদের দলের অবস্থার উপর ভিত্তি করে। ফলে দেখা যায়, যদি স্বাগতিকরা টস জিতে যায় তবেই ম্যাচ জিতে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। আইসিসি’র ক্রিকেট কমিটি টিস বাতিলের সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে সফরকারী অধিনায়ক ব্যাট বা বল করার সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন।তাই এটি বাদ দেয়ার জন্য আলোচনার উদ্দেশ্যে আইসিসি’র ক্রিকেট কমিটি নিজেদের প্রস্তুত করছে।

২০১৬ সাল থেকে ইংলিশ কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে টসে সন্তুষ্ট না হলে সফরকারী অধিনায়ক বল করার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। আইসিসি ক্রিকেট কমিটি মে মাসের শেষ দিকে মুম্বাইতে সভায় বসবে। তার আগে কমিটির ব্রিফিং নোটে দেখা যাচ্ছে, ‘টেস্ট ম্যাচের পিচ তৈরিতে স্বাগতিক দলের নাক গলানো এখন একটি মারাত্মক সমস্যা। কমিটির একাধিক সদস্য বিশ্বাস করেন সফরকারী দলকে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই টস দেয়া উচিত। যদিও কমিটিতে আরো কিছু সদস্য আছেন যাদের দর্শন এটা নয়।’ এই সভার পরই বোঝা যাবে এবার টসের ভাগ্যে কি আছে!

 

২০ মে টি-টোয়েন্টি, ১০ জুন টাইগারদের টেস্ট দল ঘোষণা

বাংলাদেশ দলের প্রাথমিক প্রস্তুতি শুরু হয়েছে ১৩ মে থেকে। এখনও চলছে শারীরিক প্রস্তুতি। আগামী ২১ মে সোমবার থেকে শুরু আসল প্রস্তুতি-মানে স্কিল ট্রেনিং। তবে আফগানিস্তান যাবার আগে ব্যাট-বলের অনুশীলনটা হবে অন্যরকম। ২০ মে টি-টোয়েন্টি, ১০ জুন টাইগারদের টেস্ট দল ঘোষণা..

আইপিএল খেলার কারণে প্রাথমিক তালিকার ৩১ জনের মধ্যে সাকিব আল হাসান আর মোস্তাফিজুর রহমান দলের সঙ্গে নেই। এখন যে ২৯ জন ক্যাম্পে আছেন, তারা সবাই আজ পর্যন্ত শুধু ফিজিক্যাল ট্রেনিংই করে যাচ্ছেন। তাদের সবাই আর স্কিল ট্রেনিং করতে পারবেন না। কারণ, এবার দল চূড়ান্ত হবার পর শুরু হবে ব্যাট-বলের অনুশীলন।

আজ সকালে জাগো নিউজকে এই তথ্য জানিয়ে দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, ‘আমরা ১৯-২০ তারিখের মধ্যে আফগানিস্তানের সাথে টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করব। সেই দল ২১ মে থেকে স্কিল ট্রেনিং করবে।’ তার মানে হলো, বাকি ১৬ জনের মধ্যে যারা টেস্ট-ওয়ানডে স্পেশালিস্ট তাদের ট্রেনিংও চলবে।

প্রধান নির্বাচকের উপরের মন্তব্যই বলে দিচ্ছে, আফগানিস্তানের সাথে ভারতের দেরাদুনে অনুষ্ঠেয় তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলবে যাবে ১৫ সদস্যের বাংলাদেশ দল। এদিকে মিনহাজুল আবেদীন নান্নু আরও জানিয়েছেন, আগামী ১০ জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াড ঘোষণা হবে।

ভারতের দেরাদুনে টি-টোয়েন্টি দল খেলতে যাবার পরও টেস্ট এবং ওয়ানডে দলের স্পেশালিস্টদের অনুশীলন চলতে থাকবে। ৯ জুন দেরাদুনে আফগানদের বিপক্ষে শেষ ম্যাচ খেলার পর টি-টোয়েন্টি দল দেশে ফিরেই জানবে, টেস্ট দল ঘোষণা হয়ে গেছে। টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডের যারা টেস্টেও থাকবেন, তাদের নিয়েই শুরু হবে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের প্রস্তুতি।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close