ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেটবিপিএল

ঢাকাই দর্শক হবে না আগের থেকেই জানতো বিসিবি

বিপিএলে সিলেটে অনেকটা গরম হাওয়া বইলেও ঢাকায় এসে সেটা উদাও।  বিপিএলে আজকের ম্যাচে ২৬ হাজার আসনে দেখা মিললো মাত্র ৩ হাজার দর্শকের।  অর্ধেকটাও পূরন হলো না স্টেডিয়ামের।  আর সেটা অনেক আগের থেকেই জানতো বিসিবি।

বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক অবশ্য আগেই জানিয়েছেন সিলেটের মতো দর্শক ঢাকায় হবে এমনটা আশা করছেন না তারা, ‘শুধু শুক্রবার বা বন্ধের দিন ছাড়া ঢাকায় দর্শক পাওয়া মুশকিল।  এলিমিনেটর, কোয়ালিফায়ার ও ফাইনাল ম্যাচে আমরা দর্শক আশা করছি। ’

অথচ বিপিএলে একটি টিকিটের জন্য পুলিশের সাথে মারামারি পর্যন্ত করেছে সিলেটবাসী।  সিলেটে বিপিএলের টিকেট সোনার হরিন হলেও ঢাকাতে সেটা সহজলভ্য পানি।

একি করলেন হাতুরু! বিরাট এক বিশ্বাসহীনতার পরিচয় দিলেন তিনি

বাংলাদেশ দলে কোচ হিসেবে আছেন অনেক দিন ধরেই।  বাংলাদেশের ১৬কোটি মানুষের ভালবাসার প্রতিক ক্রিকেটের কোচ তিনি।  তাকেও এদেশের মানুষ মনে করত।  শুনা যাচ্ছে তিনি পদত্যাগ করছেন।  তাতে কি তিনি পদত্যাগ করতেই পারেন এটা তার একান্ত ব্যক্তিগত ইচ্ছা।

একি করলেন হাতুরু!  আনুষ্ঠানিক ভাবে তিনি কিন্তু এখনও পদত্যাগ করে চলে যাননি।  তার আগেই এক বিরাট বিশ্বাসহীনতার পরিচয় দিলেন।  এদেশের মাটিতে চাকুরি করে খেয়ে পড়ে দ্রুতেই ভুলে গেলেন এদেশের মাটি ও মানুষের কথা।  অথচ তিনি কিন্তু স্বসম্মানেই চলে যেতে পারতেন।  আর সে নিজেই কিন্তু দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।  তারপরেও হাতুরু দ্রুতই পাল্টে গেলেন।

বৃহস্পতিবার হঠাৎ করেই জানা গেল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন চান্দিকা হাতুরুসিংহে।  ২০১৪ সাল থেকে মাশরাফি বিন মুর্তজা-মুশফিকুর রহিমদের প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করলেও লঙ্কান এই কোচের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার দেখলে অন্তত তা বোঝার কোনো উপায় নেই।  যেন তিনি বাংলাদেশের কোচ ছিলেনই না কখনও।

টুইটারে বাংলাদেশের কোচ থাকার কোনো তথ্যই নেই।  বাংলাদেশ সম্পর্কিত সকল তথ্য সড়িয়ে ফেলেছেন ৪৯ বছর বয়সী হাতুরুসিংহে।  সেখানে শুধু লেখা আছে, পেশাগতভাবে ক্রিকেট কোচ ও শ্রীলঙ্কার সাবেক টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেটার।  সেখানে বাংলাদেশের দায়িত্ব ছাড়ার আগে তার প্রোফাইলে বাংলাদেশের নাম উল্লেখ করা ছিল।

বাংলাদেশের নামের পাশাপাশি তিনি তার টুইটারের প্রোফাইলের ছবিও পাল্টে ফেলেছেন।  যেখানে আগে বাংলাদেশের  অনুশীলনের জার্সি পরিহিত ছবি ছিল সেখানে এখন দেখা যাচ্ছে অন্য ছবি।  বাংলাদেশ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নেওয়ার আগেই কেন এভাবে তিনি বাংলাদেশকে সড়িয়ে দিচ্ছেন সে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

গেল নয় নভেম্বর ক্রিকেট বিষয়ক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হাতুরুসিংহের পক্ষ থেকে পদত্যাগপত্র বিসিবির কাছে পাঠানো হয়েছে।  এরপর থেকেই তার সাথে বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছে বিসিবির পক্ষ থেকে।  কিন্তু তার পক্ষ থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।  তবে সর্বশেষ শনিবার তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়েছে বলে জানা যায়।

কিন্তু দুই পক্ষের মধ্যে কি কথা হয়েছে তা জানা যায়নি।  প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দিলেও ব্যক্তিগতভাবে ড্রেসিংরুমে নিজেকে নিয়ে সন্তুষ্ট নন এই লঙ্কান কোচ।  অবশ্য বাংলাদেশের দায়িত্ব তিনি আগেই ছাড়তে চেয়েছিলেন।

গেল বছরের অক্টোবরেও বিসিবিকে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি।  সেবারও বিসিবির পক্ষ থেকে তার সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখ্যান করা হয় এবং লাল-সবুজ জার্সিধারীদের সঙ্গে থাকার ব্যাপারে অনুরোধ করা হয়।  মূলত শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের কোচ হওয়ার প্রস্তাব পেয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হাতুরুসিংহে।  দুই পক্ষের মধ্যে চুক্তি নিয়েও আলোচনা চলছে।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close