ফুটবল

রিয়ালের সঙ্গে কথাবার্তা সেরে ফেললেন নেইমারের বাবা!

গেলো আগস্টে ১৯৮ মিলিয়ন পাউন্ড রেকর্ড ট্রান্সফার ফি’তে বার্সেলোনা ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইনে (পিএসজি) যোগ দেন নেইমার। বার্সা থেকে ফরাসি ক্লাবটিতে তার যাওয়ার পেছনে বড় ভূমিকা রাখেন বাবা নেইমার সিনিয়র।নেইমারের বার্সা ছাড়ার আগেই তা নিয়ে স্প্যানিশ গণমাধ্যম ঢালাওভাবে সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার করে। তবে সেসব ‘গুজব’ বলে উড়িয়ে দেয় ফ্রেঞ্চ মিডিয়া। অবশেষে স্প্যানিশ গণমাধ্যমের খবরই ফলে। ফের ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের ক্লাব পরিবর্তন নিয়ে ব্যাপকভাবে সংবাদ ছাপছে স্প্যানিশ গণমাধ্যম।

গুঞ্জন উঠেছে, পিএসজি ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদে পাড়ি জমাচ্ছেন নেইমার। সেখানে রোনালদোর পরিবর্তে আসন গাড়ছেন তিনি। এ লক্ষ্যে স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাবটির প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন সিনিয়র নেইমার। প্রাথমিক কথাবার্তাও নাকি তারা সেরে ফেলেছেন। এখন চূড়ান্ত চুক্তির পালা!মুন্ডো দেপোর্তিভোর খবর, রিয়াল প্রেসিডেন্ট ও নেইমারের বাবার সাক্ষাৎটি হয়েছে প্যারিসেই। আলোচনা ফলপ্রসূ হলে আগামী মৌসুমেই রিয়ালে দেখা যেতে পারে নেইমারকে।আগে থেকেই নেইমারে চোখ রিয়ালের। ২০১৩ সালে তাকে দলে ভেড়ানোর দৌড়ে ছিল লস ব্লাঙ্কোজরা। তবে তাদের টেক্কা দিয়ে শেষ অবধি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডকে দলে টানে বার্সা। তবে এবার নাকি সুযোগটা  কিছুতেই হাতছাড়া করতে চানা লা লিগা ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। সিআরসেভেনের ফর্মহীনতার কারণেই বেশ তোড়জোর শুরু করেছে তারা।নেইমার পিএসজিতে যোগ দিয়েছেন মাত্র ৩ মাস হলো। এরই মধ্যে নিজেকে প্যারিসের যুবরাজ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। প্রতি ম্যাচেই দ্যুতি ছড়াচ্ছেন। তার অসাধরণ পারফরম্যান্সে লিগ ওয়ানের টেবিলে সবার ওপরে রয়েছে দল। তবে সতীর্থ, কোচ ও ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ার খবরও চাউর হয়েছে। এটিও ফুটবল সেনসেশনের ক্লাব ছাড়ার গুঞ্জন উসকে দিয়েছে।

সিলেটের ‘গ্রিন গ্যালারি’তে নেই সবুজের ছিটে ফুটাও!

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের গুনে দেশের অন্য সব স্টেডিয়াম থেকে ছাড়িয়ে গিয়েছে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।প্রকৃতি মাতা যেন নিজেই নিজেকে সাজিয়ে নিয়েছে।

স্টেডিয়ামের মেইন গেইট দিয়ে ঢুকলতেই রাস্তার দুই পাশে পড়বে চোখ জুড়ানো চা বাগান।এরপর মূল ফটক দিয়ে ঢুকতেই চোখে পড়বে উত্তরপাশের প্যাভিলিয়ন ভবন। যেখানে দুই তলা গ্যালারির নিচে দুটি ড্রেসিংরুম। উপরে ব্রিটিশ স্থাপত্যশৈলির ধাঁচে তৈরি লাল টালির ছাউনি।এর পশ্চিম পাশে রয়েছে ‘গ্রিন গ্যালারি’ যেখানে ছোট টিলা কেটে বানানো হয়েছে দর্শকদের ১০ ধাপের বসার জায়গা। সিলেট স্টেডিয়ামের মাধ্যমেই গ্রিন গ্যালারির সঙ্গে প্রথম পরিচয় ঘটেছে বাংলাদেশি দর্শকদের।

কিন্তু নামে ‘গ্রিন গ্যালারি’ হলেও সবুজের ছিটে ফুটাও নেই গ্যালারিতে।বিপিএলের দর্শকের চাপে সবুজ গ্যালারি এখন ধূসর গ্যালারিতে পরিণত হয়েছে।আগামীকাল সিলেট থেকে বিপিএল বিদায় নিবে।তার পর হয়তো বাড়তি যত্ন নেওয়া হবে এই সবুজ গ্যালাড়ীড়।সৌন্দর্যের যে প্রশংসা ছড়িয়েছে সিলেট স্টেডিয়াম তাতে নিয়মিতই যেকোন বড় আসর গড়াতে পারে এই মাঠে।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close