আইপিএলক্রিকেট

প্লে অফের রেসে টিকে থাকলো মুম্বাই

শেষ বলে রুদ্ধশ্বাস পরিস্থিতি! পাঞ্জাবকে ৩ রানে হারিয়ে প্লে অফের রেসে টিকে থাকলো মুম্বাই আজকের ম্যাচটি গূরত্বপূর্ন ছিলো দুই দলের জন্যেই। যে দল জিতবে সেই দলেই জায়গা করে নিবে প্লে অফের রেসে। এই সএ ব্যাটিং করতে নামে মুম্বাই।

প্রথমে ব্যাট করতে নামা শুরুটা ভালো হয়নি মুম্বাইয়ে। শুরুতেই অপেনার লুইসকে হারায় মুম্বাই। এরপরে সুর্যকুমার ১৫ বলে ২৭ রান করে আউট হয়ে গেলে আর বিপদে পড়ে মুম্বাই। এরপরে কাইরন পোলার্ডের ২৩ বলে ৫০ রানের হাফ সেঞ্চুরির উপর ভর করে ১৮৭ রানের টার্গেট দেয় মুম্বাই।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ক্রিস গেইলকে হারায় পাঞ্জাব। এরপরে ৬০ বলে ৯৪ রান করে লোকেশ রাহুল কিছুটা আশা দেখালেও পরের ব্যাটসম্যানরা তাড়াতারি ফিরে গেলে ৩ রানের আক্ষেপে পূড়তে হয় পানাজাবকে।

 

আফগান সিরিজে সুযোগ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী মিরাজ

 

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে মেহেদি হাসান মিরাজের খেলা নিয়ে ছিল কিছুটা শঙ্কা। কাঁধে চোট পেয়েছিলেন মিরাজ। তবে সার্জারি না লাগায় চোট নিয়ে দুশ্চিন্তামুক্ত এ অলরাউন্ডার। আত্মবিশ্বাসী আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে সুযোগ পাওয়া নিয়ে।

বিসিবির ফিজিওর অধীনে বিগত কয়েকদিন ধরে নিয়মিত থেরাপি নিয়েছেন মেহেদি হাসান মিরাজ। এখন পর্যন্ত শতভাগ ফিট না হলেও অনেক উন্নতি ঘটেছে বলে জানিয়েছেন মিরাজ। তবে এখনো মিরাজের হাতে রয়েছে দীর্ঘ সময়। সিরিজের আগেই শতভাগ ফিট হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি।

সার্জারির ভয় আর নেই বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, “যে জিনিসটা নিয়ে ভয় পেয়েছিলাম, সেটা কাটিয়ে উঠেছি। আমার সার্জারি লাগবে কী লাগবে না সেটা নিয়ে ভয়ে ছিলাম। আশা করি যে এখন যে অবস্থায় আছে, সার্জারির পর্যায়ে নেই। তারপরও চেষ্টা করছি শতভাগ ফিট হওয়ার জন্য। এখনো সময় আছে। জিম আছে, মারিও (ভিল্লা ভারানে) আছেন, উনিও সহায়তা করছেন। বায়োজিদ ভাই ছিলেন, তিনিও সহায়তা করছেন। পুরো একমাস বায়োজিদ ও দেবাশীষ স্যার দু’জন আমাকে অনেক গাইড করেছেন।

ফিট হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, “এখন জাতীয় দলের ক্যাম্প চলছে। আশা করি যে ভালোই হয়েছে। আশা করি, ফিট হয়ে যাব। এখনো তো সময় আছে অনেক দিন।”

অনুশীলন ক্যাম্প করা ক্রিকেটারদের সাথে সাক্ষাৎ করেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তী এবং বাংলাদেশের সাবেক কোচ গর্ডন গ্রিনিজ। গ্রিনিজের সাথে সাক্ষাতে উচ্ছ্বসিত মিরাজ। মিরাজ বলেন, “আমাদের সাথে কথা বললেন। আমাদের বেশির ভাগেরই তার সঙ্গে পরিচয় নেই। যাদের সঙ্গে তিনি কাজ করেছেন, তারা সবাই অবসর নিয়েছেন। উনি বলেছেন, কষ্ট করতে হবে, পরিশ্রম করতে হবে। তাহলেই ভালো হবে।”

উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, ‘খুব ভালো লাগছে। তিনি কিংবদন্তি। বাংলাদেশের কোচ ছিলেন। তার সাথে কথা বলে অনেক ভালো লেগেছে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close