আইপিএলক্রিকেট

দীপিকা একজন, তাকেই আমাকে দরকার-ব্রাভো

জাতীয় দলে অনিয়মিত হলেও ফ্রেঞ্চাইজি লীগে ব্রাভোর কথা নতুন করে বলার কিছু নেই। পৃথিবীর কোন ফ্রেঞ্চাইজি লীগেই বাদ রাখেন নি ব্রাভো। আইপিএল, বিপিএল, সিপিএল, পিএসএল সব কিছুই খেলা হয়ে গিয়েছে তার।

এখন আইপিএল খেলতে ব্রাভো আছেন ভারতে। সেই ভারতের একজনের সাথেই ব্রাভোর দেখা করার খুব শখ। দলের সহযোদ্ধা হরভাজন সিং-এর সঙ্গে একটি ওয়েব ফানচ্যাট এ অংশ নিতে গিয়ে বলে দিয়েছেন নিজের মনের গোপন কথা। পছন্দের বলিউড অভিনেত্রীর নাম এবং তার সঙ্গে সাক্ষাতে অভিলাষ দেখিয়েছেন তিনি।

যদিও ‘পদ্মাবত’ দীপিকার সঙ্গে ‘চ্যাম্পিয়ান’ ব্রাভোর দেখা হয়েছে কেবল টেলিভিশনের বিজ্ঞাপন বা চলচ্চিত্রের নায়িকা রুপে বড় পর্দায়। কিন্তু নায়িকা দীপিকা পাডুকোন এর সঙ্গে অনেক সময় ধরে কথা বলার এবং আড্ডা দেওয়ার বড় ইচ্ছা ডোয়াইন ব্রাভোর।

দীপিকার সঙ্গে প্রথম সাক্ষাতের স্মৃতি এখনও ব্রাভোর সুখের রোমন্থন। ওয়েব শোতে ব্রাভো হরভাজন সিংকে জানান, ২০০৬ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সঙ্গে প্রথম ভারত সফর করেন তখন হয়েছিল। তখন হোটেলে চেক ইন করতে গিয়ে টেলিভিশনে একটি বিজ্ঞাপনে তাকে দেখেছিলেন ব্রাভো। একটি সাবানের বিজ্ঞাপন। তারপর থেকে তার স্বপ্ন সামনাসামনি দীপিকাকে দেখবেন এবং গল্প করবেন।

মজা করে ব্রাভোকে জিজ্ঞাসা করেন হরভজন, ত্রিনিদাদে কোন দীপিকাকে খুঁজে নাও। সহাস্য ব্রাভোর উত্তর। দীপিকা একজনই। পৃথিবীর আর কোথাও তাকে পাওয়া যাবেনা। ব্রাভোর সেই বার্তা কতোটুকু সাড়া দেন দীপিকা এখন সেটাই দেখার বিষয়।

 

১ বছরেই দুই বিপিএল!

 

এই বছরের অক্টোবর মাসে মাঠে গড়ানোর কথা ছিলো বিপিএলের ৬ষ্ঠ আসর। কিন্তু এই বছরের শেষের দিকেই হতে পারে সংসদ নির্বাচন। সেখানে থাকবে প্রচুর নিরাপত্তা। তাই বিপিএলের বিদেশী খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার সবার্থে এই বছরের বিপিএল পিছিয়ে আগামী বছরের জানুয়ারিতে আয়োজন করার কথা ভাবছে বিসিবি।

আর সেটা হলে এক বছরেই দুইবার বিপিএল হওয়ার সম্ভাবনা আছে। কেননা ২০১৯ সালের অক্টোবরে অনুষ্ঠিত হঅয়ার কথা ছিলো ৭ম বিপিএলের। রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিসিবির মল্লিক বললেন, ‘বিপিএল পেছানোটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। আগামী এক-দুই সপ্তাহের মধ্যে এটা চূড়ান্ত করতে পারবো। আমাদের সময় নির্ধারণ করা ছিল অক্টোবরে, কিন্তু নির্বাচনের ঠিক আগে ৭টি ফ্র্যাঞ্চাইজি ও ৩টি ভেন্যুতে খেলার জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা আমরা পাবো কিনা সেটা এখনো নিশ্চিত নয়।’

অনিশ্চয়তা থাকায় শঙ্কা জেগেছে বিপিএলের ষষ্ঠ আসর শেষঅবধি বাতিলের খাতাতেই যায় কিনা। মল্লিক অবশ্য সেই শঙ্কা উড়িয়ে দিলেন। বলেছেন, ২০১৯ সালে দুটি বিপিএল আয়োজনের কথা, ‘ষষ্ঠ আসর হওয়া নিয়ে আপাতত সন্দেহ নেই। কেবল সময়টা পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। অক্টোবরে না করে নির্বাচনের পরে জানুয়ারিতে শুরু করার চিন্তা-ভাবনা রয়েছে।’

নতুন বছরের জানুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পূর্ব নির্ধারিত সিরিজ রয়েছে বাংলাদেশের। সেটি এগিয়ে আনতে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডের সাথে যোগাযোগ করবেন বলেও জানালেন মল্লিক।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close