ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেটবিপিএল

বিপিএলে প্রথম সেঞ্চুরি করেন নাফিস, পরে হাঁকান আশরাফুল

বিপিএলে দেশি ক্রিকেটারদের সেঞ্চুরি ৩টি। আর এখন পর্যন্ত নয়টি সেঞ্চুরি দেখেছে বিপিএল। বর্তমান বিশ্বে টি-টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা যে দিন দিন বেড়েই চলেছে সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। জনপ্রিয়তার এই বাজার ধরতেই ২০১২ সালে বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করে ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। বিপিএলে দেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রথম সেঞ্চুরি করেন নাফিস, পরে হাঁকান আশরাফুল।

এবার চলছে এর চতুর্থ সংস্করণ। এবারের আসরে গত ১৩ নভেম্বর মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বরিশাল বুলসের বিপক্ষে ৬১ বলে ১২২ রানের ক্যামিও এক ইনিংস খেলেন রাজশাহী কিংসের ডানহাতি ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান। এটাই চতুর্থ আসরের প্রথম সেঞ্চুরি। আগের তিনটি আসরের আটটি সেঞ্চুরিসহ বিপিএলের ঝুড়িতে মোট নয়টি সেঞ্চুরী জমা পড়েছে।

বিপিএলের ইতিহাসের প্রথম সেঞ্চুরি করেন ব্যাটিং দানব ক্রিস গেইল। ২০১২ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি বিপিএলের প্রথম আসরে বরিশাল বার্নারসের হয়ে খুলনা রয়েল বেঙ্গলের বিপক্ষে ৪৪ বলে ১০১ রানের এক বিস্ফোরক ইংনিস খেলেন এই ব্যাটিং দানব।

বিপিএলের দ্বিতীয় শতকটিও আসে এই গেইলের সৌজন্যে। প্রথম সেঞ্চুরি করার ঠিক দু’দিন বাড়েই ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরেসর বিপক্ষে আবারও দেখা যায় গেইলের সেই রূদ্রমূর্তি। ৬১ বলে ১১৬ রানের এক বিধ্বংসী ইনিংস খেলে ফেলেন এবার।

সেই আসরেই বিপিএলের তৃতীয় সেঞ্চুরিটি করেন গেইলেরই স্বদেশী ব্যাটসম্যান ড্রোয়াইন স্মিথ। ৭৩ বলে ৬ টি চার ও ৬ টি ওভার বাউন্ডারির মাধ্যমে ১০৩ রানের এক ঝলমলে ইনিংস খেলেন খুলনা রয়েল বেঙ্গলের ব্যাটিং অলরাউন্ডার।

বিপিএলের প্রথম আসরে মোট চারটি সেঞ্চুরি আসে। আসরের চতুর্থ শতকটি করেন পাকিস্তানি ওপেনার আহমেদ শেহজাদ। ২৮ ফেব্রুয়ারি সালে বরিশালের হয়ে দুরন্ত রাজশাহীর বিপক্ষে ৪৯ বলে ১১৩ রানের বিস্কোরক এক ইনিংস উপহার দেন এই পাকিস্তানি ওপেনার।

চার-চারটা সেঞ্চুরি হলেও প্রথম আসরে আক্ষেপ ছিল একটাই – কোনো বাংলাদেশীই যে সেঞ্চুরির দেখা পাননি। সেই অপূর্ণতা মুছে যায় ২০১৩ সালে, বিপিএলের দ্বিতীয় আসরে। বিপিএলের দ্বিতীয় আসরে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ওপেনার শাহরিয়ার নাফিস সেঞ্চুরি করেন। খুলনা রয়েল বেঙ্গলের হয়ে রাজশাহী বিপক্ষে ৬৯ বলে ১০২ রানের অপরাজিত এক ইংনিস খেলেন নাফিস।

নাফিসের পর দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে বিপিএলে ২০১৩ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি মিরপুরে খুলনা রয়েল বেঙ্গলের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। ওই একই আসরেই ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে কলঙ্কিতও হতে হয় তাকে।

আশরাফুলের সেঞ্চুরির চারদিন বাদেই আবারও সেঞ্চুরি আসলো বিপিএলে। এবারও সেটা আসলো ক্যারিবিয়ান দানব ক্রিস গেইলের ব্যাট থেকে। ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে সেবার মাত্র এক ম্যাচ খেলেছিলেন গেইল। আর তাতেই বাজিমাৎ!

তৃতীয় আসরের একমাত্র সেঞ্চুরিও করেন এক ক্যারিবিয়ান। চট্টগ্রামের মাটিতে তিনি সেটা করেন এভিন লুইস। ৬৫ বলে ৭ চার ও ৬ ছক্কায় সাজানো হার না মানা এভিনের এই সেঞ্চুরিটা ছিল বরিশাল বুলসের হয়ে।

নয়টি সেঞ্চুরির মধ্যে তিনটি সেঞ্চুরি এসেছে ক্রিস গেইলের ব্যাট থেকে। পাঁচটিই করেছেন ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানরা। তিনটি এসেছে দেশী ব্যাটসম্যানদের ব্যাটে। আর একটি এসেছে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে। এবার দশম সেঞ্চুরির অপেক্ষায় আছে বিপিএল। এবারই সেই চক্র পূরণ হয়ে যাবে কি?

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close