ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেট

যে ক্রিকেটারের মতো হতে চান সাইফুদ্দিন

সাউথ আফ্রিকা সফরটা তেমন একটা খারাপ ঘটে না সাইফুদ্দিনের। দুই একটা বিছিন্ন ঘটনা ছাড়া সাইফুদ্দিনের আফ্রিকা সফরটা বেশ ভালোই ছিলো। সাম্নের সফরগুলোতে সুযোগ পেলে আরো বেশি ভালো করতে চান এই পেস অলরাউন্ডার। ার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি জানালেন তার সবপ্নের নায়কের কথা। যার মতো হতে চান তিনি।

সাইফুদ্দিন বলেন ,’আমি মাশরাফি ভাইয়ের মতো হতে চাই। তবে ব্যাপারটা এখনো অনেক দূরে। কেননা তার মতো হতে হলে আমাকে আরো অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হবে। মাশরাফি ভাই আমার ছোটবেলার থেকে প্রিয় খেলোয়াড়। তাই তার মতো হওয়া আমার স্বপ্ন। ‘

সাইফুদ্দিন আরো বলেন ,’ আমি আসলে এখন নিজের বোলিং নিয়ে কিছু কাজ করছি। আমার বোলিংয়ে কিছু ল্যাকিংস আছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে শ্রীলঙ্কা সিরিজে চান্স পেলে আমি ভালো কিছু করার চেষ্টা করবো। ‘

দোয়া করবেন, তার মতো যেন খেলতে পারি : সাইফুদ্দিন

বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে ক্যারিয়া শুরু করলেন সাইফুদ্দিন।  বাংলাদেশের দীর্ঘ দিনের আক্ষেপ পেস বোলিং অলরাউন্ডার পাওয়া তাকে দিয়েই পূরন করার স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ।  তবে এই অলরাউন্ডারের স্বপ্ন, দেশের ক্রিকেটের জীবন্ত কিংবদন্তী মাশরাফি বিন মুর্তজার পথ মাড়াতে।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের শুরুটাও হয়েছে মাশরাফির অধিনায়কত্বে।  স্বপ্ন দেখেন মাশরাফির মতই বড় ক্রিকেটার হবে তিনি।  তবে মাটিতেই পা রাখছেন তিনি ।  ‘এখনও বহু দূর।  মাশরাফি ভাই কিংবদন্তী।  তবে দোয়া করবেন তার মতো যেন খেলতে পারি। ’

শেষ পর্যন্ত তাসকিনের এই তথ্যটিও ফাঁস হয়ে গেল

হঠাৎ করে বিয়ের পর ভীষণ ব্যস্ত জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ তাজিম। নতুন জীবনের সময়গুলো দারুণ উপভোগ করলেও বিয়ের খবরটা আগে না জানাতে পারায় ভক্তদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে বলেছেন, সময় করে সবাইকে জানিয়ে একটি বড় অনুষ্ঠান করবেন।

বুধবার ব্যস্ততার ফাঁকেই তাসকিন বলেন, ‘বিয়ের পর আত্মীয়-বন্ধুদের বাসায় যাচ্ছি, জীবনের নতুন সময়টাকেও দারুণ উপভোগ করছি। “ঘরোয়াভাবে বিয়ের অনুষ্ঠান করায় অনেককে জানাতে পারিনি। সেজন্য আমি দুঃখিত আশাকরি সময় করে সবাইকে জানিয়ে একটি বড় অনুষ্ঠান করব।”

শেষ পর্যন্ত তাসকিনের এই তথ্যটিও ফাঁস হয়ে গেল, তাসকিন নাঈমার সঙ্গে দশম শ্রেণীতেই ঘটে মন দেওয়া-নেওয়ার এই ঘটনা । জানা গেছে, তাসকিনের জীবনসঙ্গী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমার সঙ্গে দশম শ্রেণীতে পড়ার সময় মন দেয়া-নেয়ার পর্ব শেষ হয়। এরপর কেটে গেছে দীর্ঘ সাত বছর।

পাশাপাশি এলাকায় থাকা, একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা সবকিছুই চলছিল সবার আড়ালে। বিষয়টি দুই পরিবারে মধ্যে জানাজানি হলে একবছর আগেই পারিবারিকভাবে তাদের আংটি বদল হয়। এরপর থেকেই বিয়ের প্রস্তুতির জন্য তৈরি হচ্ছে ছিলেন দু’পরিবার।

তবে যে এতো চটজলদি বিয়েটা হয়ে যাবে তা নিজেও বুঝে উঠতে পারেনি মন্তব্য করে ২২ বছর বয়সী এ পেসার বলেন, ‘খেলায় আরও ফোকাস বাড়ানোর জন্য, জীবনটাকে সুন্দর করে গুছিয়ে নেয়ার জন্য বিয়েটা করে ফেলেছি। আর সবচেয়ে বড় কথা আল্লাহর হুকুম হয়েছে সেজন্যই হয়ে গেছে।’   “দেশবাসীকে বলবো আমাদের জন্য দোয়া করবেন। এবং আগের মতো যেন খেলার মাঠে ফিরে আসতে পারি সেজন্যও দোয়া করবেন।”

গণমাধ্যমে বিয়ের খবর প্রকাশ হওয়ার পর তাসকিনের মেয়ে ভক্তরা ভেঙ্গে পড়েছেন। অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘তাসকিনের বিয়ে মানি না’ বলে ইভেন্ট খুলেছেন। অনেকে আবার তার বিয়েকে দেখছেন নতুন করে খেলার মাঠে তাসকিনের প্রত্যাবর্তন।

সাউথ আফ্রিকায় সিরিজ শেষে ফিরে আসার একদিন পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সৈয়দা রাবেয়া নাঈমার সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেন হালের ক্রেজ তাসকিন। বিয়ের অনুষ্ঠানে মাশরাফি ও তামিম উপস্থিত থাকলেও বিপিএল নিয়ে ব্যস্ততা থাকায় তার বেশিরভাগ সহকর্মীই উপস্থিত হতে পারেননি।

তাসকিনের স্ত্রী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ-এআইইউবি এর অর্থনীতি বিভাগে স্নাতক করছেন। তাসকিন নিজেও একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। দু’জনের বাসাই রাজধানীর মোহাম্মদপুরে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close