আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

বল বিকৃতি কাণ্ডে স্মিথের পথে হাঁটলেন ওয়ার্নার

বল বিকৃতি কাণ্ডে অস্ট্রেলিয়ান প্রাক্তন অধিনায়কের পথে হাঁটলেন বরখাস্ত সহঅধিনায়ক৷ বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইট করে স্মিথ জানিয়েছিলেন, তিনি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এক বছরের নির্বাসনের সিদ্ধান্ত বিরুদ্ধে আইনি পথে যাচ্ছেন না৷ বৃহস্পতিবার স্মিথের পথে হেঁটে অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন সহঅধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারও জানিয়ে দিলেন, বল বিকৃতি কাণ্ডের সাজা মাথা পেতে দিচ্ছেন তিনি৷

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে আইনি কোনও ব্যাবস্থা নেবেন না ওয়ার্নারও৷ এর আগে স্মিথ-ব্যানক্রফট তাঁদের শাস্তির বিরুদ্ধে আইনি সাওয়াল না করার সিদ্ধান্ত নিলেও ওয়ার্নার তাঁর শাস্তি নিয়ে কোর্টের দারস্থ হবেন বলে শোনা যায়৷ সেই বিষয়ে ধোঁয়াশা দূর করে বৃহস্পতিবার নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে দিলেন অজি বাঁ-হাতি ক্রিকেটার৷

নিজের টুইটে ওয়ার্নার লিখেছেন, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে জানাতে চাই তাঁদের সিদ্ধান্ত আমি মাথা পেতে মেনে নিচ্ছি৷ বল বিকৃতিকে মদত দেওয়ার জন্য দায় স্বীকারও করেছি৷ আমি ক্ষমাপ্রার্থী৷ ফের ভালো মানুষ হওয়ার জন্য সবরকম চেষ্টা করব৷’

এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দেশে ফিরে এসে সাংবাদিক সম্মেলনে কান্নায় ভেঙে পড়েন ওয়ার্নার৷ কেপটাউন টেস্টে বল বিকৃতি তাঁর সজ্ঞানেই হয়েছিল বলে জানিয়েছিলেন তিনি৷ শুধু তাই নয়, পুরো ঘটনার দায়ভার নিজের কাঁধে তুলে নেন৷ ভবিষ্যতে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ফের ফের তাঁকে নাও খেলতে দেখা যেতে পারে, এই জল্পনা উসকে দেন ওয়ার্নার৷ অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ান মিডিয়া সূত্রে খবর, মোটা টাকার অর্থ নিয়ে কোনও টিভি চ্যানেলের মুখোমুখি হয়ে মুখ খুলতে পারেন নির্বাসিত এই ওপেনার৷ দেশে ফিরে সাংবাদিকদের একাধিক প্রশ্ন এড়িয় গিয়ে তিনি সব ঘটনার জন্য নিজেকেই দায়ী করেছিলেন৷ পরে টুইটে জানান ‘অনেক প্রশ্নেরই উত্তর দিতে পারলাম না, সঠিক সময় সেই উত্তর দেওয়া যাবে৷

শুধু ওয়ার্নার নয়, প্রাক্তন অধিনায়ক স্মিথও অস্ট্রেলিয়ায় ফিরে বল বিকৃতি কাণ্ডের পুরো দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন৷ দুই ক্রিকেটারকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে ১২ মাসের নির্বাসনে পাঠিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷ অন্যদিকে ব্যানক্রফটকে নয় মাসের নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে৷

 

আদালতে করা জনস্বার্থ মামলায় মেঘ দেখছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা!

 

ম্যাচ গড়াপেটায় বিসিসিআইয়ের যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়া পর্যন্ত আইপিএল স্থগিত থাকুক। মাদ্রাজ হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা করে এমনই আর্জি জানিয়েছেন সিনিয়র আইপিএস অফিসার জি সম্পত কুমার।

চেন্নাইয়ের অফিসার এই সম্পত কুমারই আইপিএলে ম্যাচ গড়াপেটার খবর প্রকাশ্যে আনেন। উল্টে ২০১৩ সালে ম্যাচ গড়াপেটায় বুকিদের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন এমন অভিযোগে তামিলনাড়ু পুলিসের ‘কিউ’ ব্রাঞ্চের এসপি পদ থেকে অপসারিত হতে হয় সমপথকে। পরে অবশ্য, তাঁর বিরুদ্ধে সমস্ত মামলাই খারিজ হয়ে যায়।

মাদ্রাজ হাইকোর্টের কাছে সম্পত কুমার আবেদন করেছেন, নয়া মরসুম শুরুর আগে ম্যাচ গড়াপেটা বিষটির সমাধান করুক বিসিসিআই। তিনি জানিয়েছেন, আইপিএল বন্ধ করার পক্ষে নন, তবে সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আইপিএল স্থগিত রাখার পক্ষে সওয়াল করেন সম্পত কুমার। বুধবার শুনানি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এই মামলার। আর শনিবার থেকেই ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে মুম্বই-চেন্নাইয়ের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে আইপিএল।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close