আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

অবসর ভেঙে ফিরছে আফ্রিদি!

পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি। তিনি বুম বুম আফ্রিদি নামেও বেশি পরিচিত। আফ্রিদি ১৯৯৬ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের হয়ে ২৭টি টেস্ট ম্যাচ, ৩৪৯টি ওডিআই ম্যাচ ও ৫৬টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে। তিনি কোন দলকে পরোয়া করেন না। ব্যাটকে তরবারি বানিয়ে প্রতিপক্ষ বোলারদের কচুকাটা করতে দ্বিধা করেন না। পাশাপাশি বল হাতেও প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের ভিমরি খাইয়ে দেন তিনি। সেটা হোক গুগলি, ফ্লিপার কিংবা ফাস্ট ডেলিভারি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে তিনবার অবসর নিয়েও নানা কারণে আবারও ক্রিকেটে ফিরেছিলেন শহীদ আফ্রিদি। সবশেষ ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর চূড়ান্তভাবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান বুম বুম খ্যাত এ তারকা। চিরশত্রু ভারতে অনুষ্ঠিত ওই আসরে তার নেতৃত্বে পাকিস্তানের চরম ভরাডুবি ঘটলে তীব্র সমালোচনার মুখে এ সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সম্প্রতি আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন এ তারকা।

এদিকে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) আফ্রিদিকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেয়ার কথা ভাবছে। সময় ও সুযোগ বুঝে তাকে বিদায়ী ম্যাচ খেলিয়ে ভালোভাবে বিদায় জানাতে চায় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। এ প্রসঙ্গে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)’র চেয়ারম্যান নাজাম শেঠি বলেন, আমাদের কাছে আফ্রিদি কোনো ইস্যু নয়। পাকিস্তান ক্রিকেটকে দীর্ঘসময় সেবা দেয়ার জন্য তাকে ধন্যবাদ। সময়সাপেক্ষে ওকে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিদায় জানানো হবে।

পিসিবির এমন সিদ্ধান্তে রাজিও নাকি হয়েছিলেন আফ্রিদি! কিন্তু এখন অবস্থান পাল্টে ফের ফিরতে চান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে।

গত রোববার পেশোয়ারে গণমাধ্যমে তিনি বলেন, পাকিস্তানের হয়ে ২০ বছর ক্রিকেটে খেলেছি, পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) জন্য নয়। আমি কেবল একটি ম্যাচ খেলার জন্য মুখিয়ে নেই। ভক্ত-সমর্থকদের কাছ থেকে যে ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়েছি তাই আমার জন্য বড় পুরস্কার।

আফ্রিদির বয়স ৩৮ হয়ে গেলেও খেলাটি এখনও দারুণ উপভোগ করছেন তিনি। তিনি বলেন, আমি মনে করি না আমার ক্যারিয়ার শেষ। এখনো ক্রিকেট উপভোগ করছি। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলতে চাই। নির্বাচকরা এ বিষয়ে অবহিত। এখন তারাই সিদ্ধান্ত নেবেন।

 

মেসিকে নিয়ে দোটানায় ভুগছে বার্সেলোনা

 

রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রস্তুতি স্বরুপ বিশ্ব ফুটবলের বড় দলগুলো ইতোমধ্যে প্রীতি ম্যাচ খেলেছে। এই দলগুলোর মধ্যে আর্জেন্টিনাও খেলেছে।

ইতালি ও স্পেনের সঙ্গে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলেছে আর্জেন্টিনা। নিজেদের সেরা ফরোয়ার্ড মেসিকে ছাড়াই খেলতে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে। হ্যামস্ট্রিংয়ে চোটের কারণে খেলতে পারেননি মেসি। ম্যানচেস্টারে ইতালির বিপক্ষে ২-০ গোলে জয় এলেও মঙ্গলবার (২৭ মার্চ) স্পেনের কাছে ৬-১ হেরেছে সাম্পাওলির শীষ্যরা।

এবার লা-লিগায় মেসির খেলা নিয়ে দোটানায় ভুগছে স্প্যানিস জায়ান্ট বার্সেলোনা।

আর্জেন্টাইন সুপারস্টার হ্যামস্ট্রিংয়ে চোটের কারণে আপাতত ফুটবলের বাইরে রয়েছেন। শনিবার (৩১ মার্চ) লা-লিগায় সেভিয়ার বিপক্ষে প্রায় অনেকটাই অনিশ্চিত মেসি। অনুশীলনে ফিরলেও পুরোপুরি ফিট না হওয়ায় মেসিকে ছাড়া সেভিয়া বিরুদ্ধে জয়ের জন্য দল সাজাতে পারছে না বার্সা। অন্যদিকে বার্সার জন্য আরেকটা দুঃসংবাদ হলো চোটের কারণে শনিবার (৩১ মার্চ) ম্যাচে থাকছে না বার্সার জার্মান গোলরক্ষক স্টের স্টেগানও।

বার্সা কোচ ভালভারদে জানিয়ছেন মেসি ও স্টেগানের ফিটনেস পরীক্ষা করা হবে।

তিনি বুধবার (২৮ মার্চ) সাংবাদিকদের জানান, ‘আমি ওদের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানি না। ডাক্তারি পরীক্ষার পর জানা যাবে মেসি খেলার জন্য প্রস্তুত কিনা।’

যদিও বার্সা সুপারস্টার মেসি নিজেও সেভিয়ার বিপক্ষে খেলতে চান। দেখা যাক, শেষ পর্যন্ত খেলতে পারবেন কি না শনিবার (৩১ মার্চ) রাত পৌনে ১টায় তা জানা যাবে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close