আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

‘ক্রিকেট ঈশ্বরের’ দর্শনে মুগ্ধ প্রিয়া

প্রিয়া প্রকাশ ওয়ারিয়ার, ভারতীয় অষ্টাদশী এই যুবতীর চোখের আকর্ষণ থেকে যেন বেরই হতে পারছিল না নেট দুনিয়ার যুবক-তরুণরা। কাজল টানা চোখের ভারতীয় সেই যুবতীর ভ্রুর ওঠা-নামায় ঝড় উঠেছিল সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে।

ভারত পেরিয়ে অন্য দেশের তরুণদের মনেও ঝড় তুলেছেন দক্ষিণের এই অভিনেত্রী। তবে এবার সেই প্রিয়াই মুগ্ধ হলেন ক্রিকেটের ঈশ্বর খ্যাত শচিন টেন্ডুলকারকে দেখে।

কোচির জহওরলাল স্টেডিয়ামে আইএসএলে কেরালা ব্লাস্টার্স ও চেন্নায়িন এফসি ম্যাচে ভিভিআইপি গ্যালারিতে শচিনের সঙ্গে সাক্ষাত হয় দক্ষিণের এই অভিনেত্রীর। ভারতীয় এই লিটল মাস্টারের পাশে বসেই ফুটবল ম্যাচ দেখলেন লাখো পুরুষের হৃদয় তোলপাড় করে দেওয়া প্রিয়া।

এই অভিনেত্রীর সঙ্গে ছিলেন দক্ষিণী ছবি ‘অরু আদার লাভ’ এর নায়ক রোশন রাহুফ। যাকে তিনি চোখ মেরেছিলেন।

 

মজার ব্যাপার, ইন্ডিয়ান সুপার লিগে শচীনের দল কেরালা ব্লাস্টার্সেরই সমর্থক প্রিয়া। পরে শচিনের সঙ্গে কেরালা ব্লাস্টার্সের জার্সি তুলে ধরার ছবিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে পোস্ট করেন প্রিয়া। দর্শকরা ম্যাচে কোনো গোলের দর্শন না পেলেও শচীন-প্রিয়ার দর্শনে মুগ্ধ হয়েই বাড়ি ফেরেন।

ভালোবাসা দিবসের আগে ভাইরাল হয় ‘অরু আদার লাভ’ নামে এক দক্ষিণী ছবির ক্লিপিংস। যেখানে স্কুল ড্রেসে প্রিয়াকে তার প্রেমিক চরিত্রের সাথে চোখের ইশারায় কথা বলতে দেখা যায়। ২০ সেকেন্ডের সেই ভিডিওতে ধরা পড়েছে কখনও ডান কখনও বা বাঁ ভ্রু নাচানোর কারিকুরি।

 

দুষ্টু ইশারায় চোখ মেরে প্রিয়া শুধু তার বয়ফ্রেন্ডকে নয়, কুপোকাত করেছেন লাখো তরুণের হৃদয়ও। ইউটিউবে যেমন তার ভিডিওর ভিউয়ার লাফিয়ে বাড়ছে, তেমনি ইনস্টাগ্রামেও তার ফলোয়ারের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। মাত্র দুদিনের মধ্যেই তুমুল জনপ্রিয়তা পাওয়া প্রিয়ার প্রতিটি পদক্ষেপে এখন সবার নজর।

 

ব্যর্থ তামিম, ব্যর্থ পেশোয়ার

 

পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) চলতি আসরের প্রথম ম্যাচে তামিম ইকবালের ব্যাট থেকে এসেছিল মাত্র ১১ রান। পরের ম্যাচে ৩৯ রানের দারুণ এক ইনিংসের পর তৃতীয় ম্যাচে আবারও ১১ রান। দুই ১১-তেই হারে তার দল পেশোয়ার জালমি।

রবিবার দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামে ড্যারেন স্যামির পেশোয়ার। ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেটে করে ১৩১ রান। তামিম ছাড়া আর কামরান আকমল (১৪) ও ডোয়াইন স্মিথ (৭১ অপরাজিত) দুই অংকে পৌঁছাতে পেরেছিলেন। তামিম ১২ বলে ১১ রান করেন।

তৃতীয় ওভারে টাইমল মিলসকে দুটি চার হাঁকিয়ে তামিম শুরুটা ভালোই করেছিলেন। কিন্তু পরের ওভারে আমিরের প্রথম বলেই আউট হয়ে যান বাংলাদেশের ওপেনার। বাঁহাতি পেসারের কিছুটা দেরিতে সুইং করা বল তামিমের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ানের গ্লাভসে জমা পড়ে।

তামিমদের করা ১৩১ রানের জবাবে ১৯ ওভার চার বলে পাঁচ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে করাচি কিংস। টুর্নামেন্টে দুই ম্যাচে এটি তাদের দ্বিতীয় জয়। আর তিন ম্যাচে তামিমদের এটি দ্বিতীয় পরাজয়।পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে আছে করাচি। আর পেশোয়ার আছে চতুর্থ স্থানে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close