আন্তর্জাতিক ফুটবলফুটবল

বিশ্বকাপকে সামনে রেখে মেসিকে যে অনুরোধ করল আর্জেন্টিনা

এবছর জুনে রাশিয়ায় পর্দা উঠতে ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে বড় আসর ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ আসরের। ১৪ই জুন পর্দা উঠবে এ আসরের এবং ১৫ই জুলাই ফাইনালের মাধ্যমে শেষ হবে এ আসর। আর এই আসরের সেরা ৩২তে জায়গা পেতে অনেক ঝামেলায় পোহাতে হয়েছে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনাকে। আর এই বিশ্বকাপই হয়তো শেষ সুযোগ হতে পারে আর্জেন্টাইন প্রাণভোমরা মেসির।

রাশিয়া বিশ্বকাপের ট্রফি নিয়ে আসাটা মেসির দেশে আর্জেন্টিনার সমর্থকদের বহুদিনের ইচ্ছে। কারণ রাশিয়া বিশ্বকাপই শেষ বিশ্বকাপ হতে পারে মেসির। আর এই বিশ্বকাপকে সামনে রেখে মেসিকে বার্সেলোনার জার্সিতে কম ম্যাচ খেলার আবেদন করেছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ক্লদিও তাপিয়া।

মেসিকে অনুরোধ করে তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপে তরতাজা ও চোটমুক্ত অবস্থায় চাই লিওকে। তাই ওকে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে একটু কম ম্যাচ খেলতে বলা হয়েছে। সার্জিও আগুয়েরো এই মুহূর্তে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে। আর মেসি তো সব সময়েই দক্ষতার শীর্ষে থাকে। বিশ্বকাপে সেই ফর্মেই ওকে চায় আর্জেন্টিনা। ‘

মাশরাফি–তামিমের অন্য রকম ‘তর্ক’

আজ অনুশীলনের পর দুপুরে একটা সমাবেশ (নাকি জম্পেশ আড্ডা হলো মিরপুরে ‘সাকিব কনভেনশন হলে’)। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আগে ক্রিকেটার-সাংবাদিকেরা এক বিন্দুতে মিললেন। তবে উপলক্ষটা ক্রিকেট ছিল না, ছিল অন্য কিছু।
সিনিয়র ক্রীড়া সাংবাদিক সাইদ জামান একটি বই লিখেছেন। বাংলাপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত এই বইটির নাম ‘ব্রাজিল’। বোঝাই গেল, লেখক এটি ক্রিকেট নিয়ে লেখেননি। ২০১৬ সালে রিও অলিম্পিক কাভার করেছিলেন তিনি। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই লেখা বইটি। মজাটা হচ্ছে, ‘অক্রিকেটীয়’ এই বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠান জমিয়ে তুললেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররাই।
ব্রাজিল নিয়ে বই হলো, আর্জেন্টিনাকে নিয়ে কেন নয়—লেখককে এমন প্রশ্নই করলেন ‘আর্জেন্টিনা অন্তঃপ্রাণ’ মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক আকাশি-নীলদের ভালোবাসেন ডিয়েগো ম্যারাডোনার কারণে। তাই বলে ব্রাজিলের প্রতি কোনো ‘বিদ্বেষ’ তাঁর নেই, ‘আর্জেন্টিনা সমর্থন করলেও ব্রাজিলের খেলাও দেখি। রোনালদোর খেলা দেখেছি, রোনালদিনহোর খেলাও খুব ভালো লাগত। ব্রাজিলের সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে সাম্বা।’
বইয়ের প্রকাশনা উৎসব হলেও অনুষ্ঠানটি রূপ নিল চিরায়ত ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা তর্কে। বাংলাদেশ দলে যদিও মাশরাফির পক্ষেই ‘ভোট’ বেশি, বেশির ভাগই আর্জেন্টিনার সমর্থক। মাশরাফি-সাকিব-মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকের মতো অনেকেই পছন্দ করেন আর্জেন্টিনাকে।
বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে ‘আর্জেন্টিনাবিরোধী’ও আছে যথেষ্টই। সেই দলটির নেতৃত্বে তামিম ইকবাল। ব্রাজিলের একনিষ্ঠ সমর্থক তামিমের তর্ক সবচেয়ে বেশি জমে মাশরাফির সঙ্গে, ‘ফুটবল নিয়ে সবচেয়ে মজার তর্ক হয় মাশরাফি ভাইয়ের সঙ্গে। গত বিশ্বকাপে জার্মানির কাছে ৭ গোল খাওয়ার পর খুব খারাপ লেগেছিল। তবে আর্জেন্টিনা-সমর্থক কেউ বলতে এলে বলি, পরের বিশ্বকাপ থেকেও যদি জিততে শুরু করেন আমাদের সমান হতে ১২ বছর লাগবে! ওই লেভেলে আসেন, তার পর কথা হবে!’
আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল বিতর্কের শেষ না হলেও একটি বিষয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা একমত, ফুটবল-পাগল এ দুই দেশের সঙ্গে যদি বাংলাদেশের ক্রিকেট ম্যাচ হয়, সেখানে তারা বলে-কয়েই জিতবেন! লেখক সাইদ মজার এক তথ্য জানালেন, আর্জেন্টিনা ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী নাকি তামিমের ভীষণ ভক্ত। তিনি আবার আর্জেন্টিনা জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়ও। তাঁর অনুরোধ, তামিম যদি কোনো দিন আর্জেন্টিনা বেড়াতে আসেন, তাহলে যেন কয়েকটি ব্যাট সঙ্গে আনেন। ক্রিকেট সরঞ্জামাদি নাকি প্রায় পাওয়াই যায় না ফুটবল-পাগল আর্জেন্টিনায়!

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close