আন্তর্জাতিক ফুটবলফুটবল

ভক্তদের জোড়া গোল উপহার দিলেন হিগুইন

জোড়া গোল পেলেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড গনজালো হিগুইন। তবে নায়ক হতে হতেও খলনায়কও তিনি। মিস করেছেন পেনাল্টি কিক। অন্যদিকে গোল পেলেন হ্যারি কেইন ও এরিকশন। আর তাতেই উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলার প্রথম লেগের ম্যাচে জুভেন্টাস ও টটেনহামের মধ্যকার ম্যাচটির পরিণতি ড্র। জুভেন্টাসের মাঠে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি ড্র হয়েছে ২-২ গোলে। তবে ঠিকই ভক্তদের জোড়া গোল উপহার দিলেন হিগুইন।

জুভেন্টাসের মাঠে স্বাগতিকদের শুরুটা হয় উড়ন্ত। ম্যাচের মাত্র ৯ মিনিটের মধ্যেই ২ গোলে এগিয়ে গিয়ে বড় জয়ের স্বপ্নই দেখতে শুরু করে জুভেন্টাস। শুরুটা হয় ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটের সময়। টটেনহামের ডিবক্সের একটু বাইরে থেকে ফ্রিকিক পায় জুভেন্টাস। সেখান থেকে পাজানিকের বুদ্ধিদিপ্ত ফ্রিকিক থেকে চলন্ত বলেই ডান পায়ের কিকে জুভেন্টাসকে এগিয়ে দেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড গনজালো হিগুইন। এরপর এই গোলের রেশ না কাটতেই আবারো গোল পায় স্বাগিতকরা।

ম্যাচের সপ্তম মিনিটে ফ্রেডরিকো বার্নাডেসচিকে ডিবক্সের ভেতরে ফাউল করে জুভেন্টাসকে পেনাল্টি উপহার দেন টটেনহাম তারকা বেন ডেভিস। আর পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান ২-০ করেন হিগুইন।

২-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে হুঁশ ফেরে ইংলিশদের। এরপর নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে একের পর এক আক্রমন করতে থাকে স্পার্সরা। আর তেমনই একটি আক্রমন থেকে অন্তত পেনাল্টি পেতে পারত ম্যাচের ১২ মিনিটের সময়। পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে কেইনকে ফেলে দিলেও রেফারি এক্ষেত্রে থাকেন নিরব।

ম্যাচের ২৬ মিনিটের সময় এবার জুভেন্টাসের ত্রাতা বুফন। এরিকশনের ক্রসে গোলপোষ্টের খুব কাছ থেকে নেয়া হ্যারি কেনের হেড দারুন দক্ষতায় থামিয়ে দিয়ে হতাশায় স্তব্দ করে দেন হ্যারি কেইনকে। ৪ মিনিট পর দারুন সুযোগ এসেছিল হিগুইনের সামনে। তবে এবার এই ফরোয়ার্ড শট নেন গোল পোস্টের বাইরে দিয়ে।

এরপর ম্যাচের ৩৫ মিনিটে আর হ্যারি কেইনকে আটকে রাখতে পারেনি জুভেন্টাস। ডেলে আলীর দুর্দান্ত ডিফেন্সচেরা এক পাসে ফাকায় বল পেয়ে যান হ্যারি কেইন। তাকে আটকাতে ছুটে এসেছিল বুফন। কিন্তু বুফনকেও ছিটকে দিয়ে আরেকটু এগিয়ে গিয়ে বাঁ পায়ের দারুন শটে ব্যবধান কমান এই ইংলিশ ফরোয়ার্ড। ম্যাচের ৪০ মিনিটে এরিকশনের দুরপাল্লার আরেকটি শট বুফনের বরাবর গেলে প্রথমার্ধে আর সমতায় ফেরা হয়নি অতিথিদের। তবে প্রথামর্ধের অতিরিক্ত সময়ে ভুল করে বসেন টটেনহাম তারকা সার্জিও আউরিয়ার। জুভেন্টাসের রাইট উইঙ্গার ডগলাস কস্তা দুর্দান্ত ভাবে বল নিয়ে স্পার্সদের ডিবক্সে ঢুকে পড়লে তাকে আটকাতে ফাউল করেন আউরিয়ার। আর তাতে পেনাল্টি পায় জুভেন্টাস।

পেনাল্টি থেকে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয়ার সুযোগ ছিল জুভদের সামনে। কিন্তু কিন্তু হেলায় সেই সুযোগ হারায় ম্যাচে দুই গোল করা হিগুইন। এবার তার বল আটকে যায় বারপোষ্টে। ফলে বিরতির আগে আর খেলার ফলের কোন পরিবর্তন আসেনি।

দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমনাত্মক খেলতে থাকে জুভেন্টাস। তেমনই একটি আক্রমন থেকে ম্যাচের ৫৭ মিনিটে ডিবক্সের বাইরে থেকে বার্নাদেসচির শট টটেনহাম গোলকিপার ঝাপিয়ে পড়ে রক্ষা করেন। আর এমন শটে গোল না পাওয়ায় হতাশায় মাথাতেই হাত দিয়ে ফেলেন জুভেন্টাস তারকা। পরের মিনিটে মানজুকির হেড টটেনহাম গোলরক্ষকের হাতে যাওয়ায় ব্যবধান বাড়ানো হয়নি এবারো।

তবে জুভেন্টাসের আক্রমন সামলে সুযোগ পেলেই নিজেরাও আক্রমনে যাচ্ছিল কেইন-এরিকশনরা। আর এমনই একটি আক্রমন থেকে ম্যাচের ৭০ মিনিটের সময় জুভেন্টাসের ডিবক্সের বাইরে থেকে ফ্রিকিক পায় টটেনহাম। আর সেই ফ্রিকিক সামনে থাকা মানব দেয়ালের পায়ের নিচ দিয়ে মেরে বুদ্ধিদিপ্ত ভাবে জুভেন্টাসের জালে জড়িয়ে দেন এরিকশন। বল জালে যাওয়ার আগে বুফন হাত ছোয়াতে পারলেও বলের গতিপথ আটকাতে পারেননি।

এরপর ম্যাচে বেশি কিছু আক্রমন করে জুভেন্টাস তারকারা। তবে আর কোন গোল দিতে না পারলে ম্যাচটি শেষ হয় সমতায়। তাই দুই দলের পরের রাউন্ডে নিশ্চিত হবে টটেনহামের মাঠে দ্বিতীয় লেগে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close