আন্তর্জাতিক ক্রিকেটক্রিকেট

কেরিয়ারের ১৭তম সেঞ্চুরি রোহিতের

ঘরেই বাঘ, বিদেশের মাটিতে জারিজুরি শেষ। ভারতীয় ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মাকে নিয়ে এমন কথাই ঘোরে ভারচুয়াল দুনিয়ায়। ওয়ান ডে কেরিয়ারে দু-দুটো দ্বিশতরান ঝুলিতে থাকলেও বিদেশের মাটিতে তেমন দাঁত ফোটাতে পারেন না রোহিত। কিন্তু মঙ্গলবার ফের একবার নিন্দুকদের চুপ করিয়ে দিলেন ‘রো-হিট’ম্যান।

পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জেস পার্কে প্রোটিয়া বোলারদের ছাতু করে কেরিয়ারের ১৭তম শতরান হাঁকিয়ে ফের জবাব দিলেন ভারতীয় ওপেনার। আগের চার ম্যাচে পরপর ব্যর্থ হওয়ায় চাপের পাহাড়ের নিচে ছিলেন তিনি। সিরিজে নিজের সেরা ইনিংস খেলে আপাতত স্বস্তিতে ফিরলেন রোহিত। ১২৬ বলে ১১৫ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলে লুঙ্গি এনগিডির বলে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন রোহিত। বাকিরা এদিন কেউই সেভাবে জ্বলে উঠতে পারেননি।

শ্রীলঙ্কাও আশা করছে বাংলাদেশ ভালো খেলবে!

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে বাজেভাবে (৭৯ রান) হারে বাংলাদেশ দল। এরপর টেস্ট সিরিজেও বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে হেরেছে লঙ্কানদের কাছে। শ্রীলঙ্কার অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরা কি তাই খোঁচা দিলেন! টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর আগে আজ সংবাদ সম্মেলনে পেরেরা আশা প্রকাশ করলেন, আগের দুটি সিরিজের তুলনায় টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশ অপেক্ষাকৃত ভালো খেলবে।

অথচ প্রতিপক্ষ দলের হার কামনা করেই মাঠে নেমে থাকেন যেকোনো খেলোয়াড়। পেরেরা কি এ ক্ষেত্রে কিছুটা ব্যতিক্রম? না, এমন প্রশ্নের কোনো অবকাশ নেই। আসলে গত দুটি সিরিজে বাংলাদেশ যেভাবে খেলেছে, তাতে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড় হয়েও পেরেরা যেন কিছুটা মায়া দেখালেন! সে জন্য কিন্তু বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্সই দায়ী। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে ২২১ রানে গুটিয়ে দিয়ে বাংলাদেশ দল অলআউট হয়েছে মাত্র ১৪২ রানে! এরপর চট্টগ্রাম টেস্টে লড়াই করলেও মিরপুর টেস্টে তিল পরিমাণ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেনি মাহমুদউল্লাহর দল। স্বাগতিকেরা সে রকম কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে না পারায় তাই এটা ভেবে নেওয়াই যায় যে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আঁচ পেতেই পেরেরা বাংলাদেশ দলের কাছ থেকে ভালো খেলার আশা করছেন!
সংবাদ সম্মেলনে ২৮ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার বলেন, ‘ক্রিকেট এমন একটি খেলা, যেখানে হার-জিত নিয়ে আগেভাগে কিছু বলা যায় না। কিন্তু যে দল তুলনামূলক কম ভুল করবে, তারাই জিতবে। আমি জানি, বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবে, কারণ তারা টানা দুটি সিরিজ হেরেছে। আমার আশা, আগের দুটি সিরিজের তুলনায় বাংলাদেশ এ সিরিজে (টি-টোয়েন্টি সিরিজ) অপেক্ষাকৃত ভালো খেলবে।’
শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে পরশু টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এরপর ১৮ ফেব্রুয়ারি সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ খেলবে মাহমুদউল্লাহর দল। তা, এ সিরিজে ফেবারিট দল প্রসঙ্গে পেরেরা খুব স্বাভাবিকভাবেই এগিয়ে রাখলেন তাঁর দলকে, ‘একজন শ্রীলঙ্কান হিসেবে আমি অবশ্যই বলব টি-টোয়েন্টি সিরিজে শ্রীলঙ্কাই ফেবারিট। এর কারণ, যে দল তুলনামূলক ভুল কম করবে, তারাই জিতবে।’
পেরেরা কিন্তু ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিলেন আগের দুটি সিরিজে বাংলাদেশের তুলনায় শ্রীলঙ্কা দল কম ভুল করেছে। এখন টি-টোয়েন্টি সিরিজে কোন দল কম ভুল করে, সেটাই দেখার বিষয়।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close