ফুটবল

নিজেদের ঘর গোছাতে নেমে গেছে ক্লাবগুলো

শীতকালীন ট্রান্সফার মার্কেট বন্ধ হয়ে গেছে। সামনের গ্রীষ্মকালীন ট্রান্সফার মৌসুম শুরু হতে এখনো ছয় মাস বাকি। এখন থেকেই নিজেদের ঘর গোছাতে নেমে গেছে ক্লাবগুলো। তাই পিছিয়ে নেই রিয়াল মাদ্রিদও। ইতোমধ্যে তারা হাত বাড়িয়েছে ম্যানইউয়ের স্প্যানিশ গোলরক্ষক ডেভিড ডি গেয়ার দিকে। ম্যানইউর গোলরক্ষকও নাকি রিয়ালে যোগ দিতে আগ্রহী।
তাই সুযোগ বুঝে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ হোসে মরিনহোও জুড়ে দিচ্ছেন নানা রকম শর্ত। একদিন আগের খবর, ডি গেয়ার জন্য ১৩০ মিলিয়ন ইউরো চাই ইউনাইটেডের। কিন্তু একদিন পর অর্থাৎ বৃহস্পতিবার মিলল অন্য খবর।
স্পেনের গণমাধ্যমের খবর, স্পেশাল ওয়ান মরিনহো ডি গেয়াকে ছাড়তে রাজি। তবে নগদ টাকায় নয়, বিনিময়ের চুক্তির ভিত্তিতে ডি গেয়াকে ছাড়তে চান। মানে খেলোয়াড়ের বদলে খেলোয়াড় চাই তার। তাতেও রিয়ালের দুশ্চিন্তার কিছু ছিল না। কিন্তু বিনিময় চুক্তির আদলে মরিনহোর যে প্রত্যাশা, তা শুনে পেরেজের পিলে চমকে উঠার কথা। এক ডেভিড ডি গেয়ার পরিবর্তে রিয়ালের তিনজন খেলোয়াড়কে যে চাইলেন!

স্পেনের ক্রীড়া দৈনিক ডিয়ারিও গোল জানিয়েছে, মরিনহো নিজের এই প্রত্যাশার কথা ইতোমধ্যে রিয়াল সভাপতিকে জানিয়েও দিয়েছেন। মরিনহো নাকি সরাসরিই বলেছেন, ডি গেয়াকে নিতে হলে রিয়ালের তিনজনকে চাই তার।
তা ডি গেয়ার বিনিময়ে কোন তিনজনকে চান মরিনহো? রিয়ালের ফরাসি ডিফেন্ডার রাফায়েল ভারানে, স্প্যানিশ মিডফিল্ডার ইসকো এবং তরুণ ফরোয়ার্ড মার্কো এসেনসিও, এই তিনজনকে চান মরিনহো! ২৪ বছর বয়সী ভারানেকে খুবই পছন্দ মরিনহোর। ফরাসি ডিফেন্ডারের সঙ্গে মরিনহোর সম্পর্কটাও দারুণ। রিয়ালের কোচ থাকার সময় মরিনহোর অন্যতম আস্থার পাত্র ছিলেন এই ফরাসি তরুণ।
ইউনাইটেডের রক্ষণভাগের শক্তি বৃদ্ধির আশায় মরিনহো হাত বাড়িয়েছেন সেই প্রিয়পাত্রের দিকে। পাশাপাশি মিডফিল্ড জাদুকর ইসকো এবং তরুণ ফরোয়ার্ড এসেনসিওর নামটিও জুড়ে দিয়েছেন প্রত্যাশার তালিকায়।
রিয়াল মরিনহোর এই আবদার মানবে না, সেটা অনুমিতই। তবে মরিনহো কি চান আর রিয়াল কোন পথে হাঁটে সেটা আলাদা বিষয়। ওদিকে রিয়ালের আগ্রহ দেখেই ইউনাইটেডে নিজের প্রাপ্য অধিকারের প্রতি সোচ্চার হয়ে উঠেছেন ডেভিড ডি গেয়া। ২৭ বছর বয়সী স্প্যানিশ গোল ক্লাব ইউনাইটেডের কাছে জানিয়েছেন বেতন বৃদ্ধির দাবি!
তাও অল্প-বিস্তর নয়। বিশাল অঙ্কের বেতন বৃদ্ধির দাবিই করেছেন ডি গেয়া। ইউনাইটেডে বর্তমানে তার সাপ্তাহিক বেতন ২ লাখ ৪০ হাজার ইউরো। ইংল্যান্ডের গণমাধ্যমের খবর, ডি গেয়া দাবি করেছেন তার প্রায় দ্বিগুণ বেতন। দাবি জানিয়েছেন সাপ্তাহিক ৪ লাখ ২০ হাজার ইউরো বেতনের।
দাবি পূরণ হলে, তিনি হবেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া ফুটবলার। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের খেলোয়াড়দের মধ্যে বেতনে তার চেয়ে উপরে থাকবেন কেবল মাত্রই আর্সেনাল ছেড়ে ইউনাইটেডে যোগ দেয়া অ্যালেক্সিস সানচেজ।
এসবই গুঞ্জন নাকি কিছুটা সত্যও আছে, তা বুঝতে হলে ধৈর্য ধরে অপেক্ষাই করতে হবে। দল বদলের আগে কত রকম গুঞ্জনই তো ছড়াবে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close