ক্রিকেটবাংলাদেশ ক্রিকেট

তবুও ভয় নেই সাব্বিরের

জাতীয় দলের অনুশীলন চলছে মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে। গতকাল একাডেমিতে ছিল ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলন। সেখানে প্রায় সবাই উপস্থিত থাকলেও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না সাব্বির রহমান রুম্মানকে। গতকাল প্রকাশিত হয়েছে তার জাতীয় ক্রিকেট লীগ চলাকালে (এনসিএল) দর্শক পেটানোর ঘটনা। তাই সংবাদ মাধ্যমের চোখ এড়িয়ে চলছিলেন। অবশেষে দুপুর ২টার দিকে তিনি বের হয়ে এলেন।

নিজ গাড়ির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন একেবারেই ভাবলেশহীন ভাবে। দুই একজন সংবাদকর্মী এগিয়ে যেতেই হেসে এগিয়ে এসে হাত মিলালেন। কুশল বিনিময়ের পর প্রশ্ন করা হলো কী ঘটেছিল সেই দিন? সাব্বির যেন বুঝেই না বোঝার ভান করে বলেন ‘কোন্‌ ঘটনা?’ এনসিএলের শেষ রাউন্ড চলাকালে দর্শক পেটানো, আম্পায়ারদের সঙ্গে বাজে আচরণের কথা মনে করিয়ে দিতেই সাব্বির বলেন, ‘আমি এখনো তেমন কিছুই জানি না। দেখি কথা হোক এ নিয়ে। এখনই কিছু বলতে পারবো না। কথা হলে জানাবো আপনাদের।’

এ বলে গাড়িতে উঠে চলে যান মাঠ ছেড়ে। একথায় ঘটনাটি তিনি পরিষ্কারভাবেই এড়িয়ে যান কিছু জানি না বলে। এনসিএলের ৬ষ্ঠ ও শেষ রাউন্ড চলাকালে সাব্বিরকে লক্ষ্য করে এক কিশোর দর্শক আওয়াজ করেন বিড়ালের ডাকে ‘ম্যাও’ বলে। অভিযোগ উঠেছে এরপরই সাব্বির সেই কিশোর দর্শককে ডেকে এনে মারপিট করেন। তার আগে তিনি ম্যাচ চলাকালে দুই আম্পায়ারের কাছে এক ওভারের জন্য অনুমতি নিয়ে বাইরে গিয়েছিলেন। এ বিষয়ে সাব্বিরকে মুঠোফোনে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘রিপোর্ট তো হয়েছে। এখন এ নিয়ে কথা বলতে চাইছি না। তবে পরে কথা বলবো।’

এছাড়াও মাঠে খেলা চলাকালে ড্রেসিং রুমের সামনে তিনি মোবাইল ফোনেও কথা বলেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। আকসুর নিয়মে কোনো ক্রিকেটারই খেলা চলাকালে মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবে না। এ বিষয়ে বিসিবির এন্টি করাপশন ইউনিট আকসুর প্রধান মেজর (অব.) এ এম হুমায়ুন মোরশেদ বলেন, ‘আসলে আকসুর বিষয়গুলো অত্যন্ত গোপনীয়, আমরা বিসিবির অনুমতি ছাড়া সংবাদ মাধ্যমে বলতে পারি না।’

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close