ক্রিকেটটি১০

সাকিবকে আবারো অপমান করল মরগান

টি-টেন লিগে গতকাল দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে রান সোয়া ৮টায় মাঠে নামে সাকিব আল হাসানের দল কেরালা কিংস ও টিম শ্রীলঙ্কা। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে মুনাভিরা(১৫), রাজাপাক্সা(২৬), জয়সুরিয়া(১) রানে আউট হন। তবে চান্দিমাল ৩৮ ও রামবুকভেল্লা ২০ রানে অপরাজিত ছিলেন। তবে এ ম্যাচে সাকিবকে বল করার সুযোগ দেননি অধিনায়ক মরগান।
আজকে সেমিফাইনালে সাকিব আল হাসানের কেরালা মুখোমুখি হয় মারাঠা অ্যারাবিয়ান্সের। আর এই ম্যাচেও সাকিবের উপর ভরসা করতে পারেনি মরগান। বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডারকে বল করতে না দেওয়া সত্যিই অপমানজনক।

ব্রাভো নিজের প্রথম ওভারে ২০ রান দেওয়ার পরেও শেষ ওভার তার হাতেই বল তুলে দেন মরগান তবুও সাকিবকে সুযোগ দিলেন না। এই ম্যাচে সাকিবদের বিপক্ষে ১০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ৯৭ রান সংগ্রহ করে মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স।

ভক্তদের যে সুখবর দিলেন মাশরাফি

আবার টেস্টে ফিরতে পারেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। নিজের বর্তমান ফিটনেস নিয়ে এতোটা আত্মবিশ্বাসী যে, নিজেই জানিয়েছেন টেস্টে ফেরার আশার কথা। মাশরাফির টেস্ট ক্যারিয়ারটা থমকে আছে তার ইনজুরিপ্রবণ ফিটনেসের কারণে। তার দুই পায়েই হাঁটুতেই একাধিকবার অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। সব মিলিয়ে দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটের জন্য মাশরাফি নিজেকে প্রস্তুত মনে করছিলেন না। এ করণে শুধু সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলছিলেন তিনি। কিন্তু তার বর্তমান ফিটনেস নিয়ে তিনি নিজে আশাবাদী।

গত কয়েক বছরে ফিটনেসে যথেষ্ট উন্নতি করেছেন মাশরাফি। বাড়িয়েছেন খেলার চাপও। কিন্তু ফিটনেসটা আগের মতো আর ভেঙে পড়েনি। এ কারণেই মূলত আবার সাদা পোশাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিয়ে আশাবাদী তিনি।

মাশরাফি সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিলেন ২০০৯ সালে। ইনজুরিজনিত কারণে এরপর আর তাকে ক্রিকেটের অভিজাততম সংস্করণে দেখা যায়নি। এবার ফেরার আশার কথা বললেও সেটা যে শিগগিরই হবে, এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। মাশরাফি কেবল বলেছেন যে, টেস্ট ফেরার আশাটা তিনি এখনো বাদ দেননি।

এ বিষয়ে বিজয় দিবসের ক্রিকবাজের সঙ্গে কথা বলার সময় মাশরাফি বলেন, ‘প্রতিটি ক্রিকেটারই টেস্ট খেলতে চায়। আমার বয়স যদিও ৩৪ হয়ে গেছে, তারপরও সাদা পোশাকে বোলিং করার ইচ্ছেটা এখনো আছে।’
তিনি আরো বলেন, ‘সব কিছু যদি পরিকল্পনামাফিক এগোতে থাকে, তাহলে হয়তো আমি আবার টেস্টে ফিরবো। তবে সেটা কবে, তা এখনো নিশ্চিত নয়।’

৩৪ বছর বয়সে এসে আসলে একজন পেসার হিসেবে কোনো ক্রিকেটারের টেস্ট খেলা খুব কঠিন। এ বয়সে সাধারণ অবসরেই চলে যান পেসাররা। কিন্তু মাশরাফি সাহস পাচ্ছেন কোত্থেকে— সে ব্যাখ্যাও তিনি দিয়েছেন, ‘গত কয়েক বছরে আমার ফিটনেসে উল্লেখযোগ্য উন্নতি হয়েছে। এখানেই আশাটা পাচ্ছি। দেখা যাক সামনে কী হয়।’

এ দিকে শোনা যাচ্ছে যে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজেই টেস্টে দেখা যেতে পারে মাশরাফিকে। যদিও এ বিষয়ক কোনো নিশ্চিত খবর এখনো মিলেনি। জানা গেছে, দিন কয়েক আগে বোর্ড মিটিংয়ের সময় বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন মাশরাফির কাছে জানতে চেয়েছিলেন যে, তিনি টেস্ট খেলতে আগ্রহী কিনা। মাশরাফি তখন তার ইচ্ছের কথা প্রকাশ করেছেন।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close